চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ৪ জুন ২০২০ , ২১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রাঙামাটিতে থামানো যাচ্ছেনা আগত মানুষের ঢল

টাকা নিয়ে মানুষ প্রবেশ করানোর সময় পুলিশের এসআইকে আটক করলো জনতা

আলমগীর মানিক, রাঙামাটি থেকে প্রকাশ: ১৬ এপ্রিল, ২০২০ ৪:৪৮ : অপরাহ্ণ

সরকারের নানামুখি কঠোর পদক্ষেপের মধ্যেও পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে বন্ধ হচ্ছেনা মানুষের আগমন। নিরাপত্তা চৌকির দায়িত্বে থাকা একশ্রেণীর লোভী কিছু সদস্যের কারনে অনৈতিক সুবিধা দিয়ে প্রতিদিনই রাঙামাটির বিভিন্ন স্থান দিয়ে মানুষ প্রবেশের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এনিয়ে স্থানীয় উৎকন্ঠিত বাসিন্দারা বেশ বিক্ষুব্ধও হয়ে উঠছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাঙামাটি জেলায় প্রবেশের সীমান্তমুখ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানাধীন রানীরহাট পুলিশ ফাড়িঁর সম্মুখে চট্টগ্রাম-রাঙামাটি প্রধান সড়কের উপর মাথাপিছু এক হাজার টাকা নিয়ে মানুষজনকে রাঙামাটিতে ঢুকতে দেওয়ার সময় রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশের এসআই মোঃ শহিদুল ইসলামকে হাতে নাতে আটক করেছে স্থানীয়রা। সে রানীরহাট পুলিশ ফাড়ির আইসি হিসেবে কর্মরত ছিলো।

আটককৃত এসআই শহিদুল করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি মাথায় নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা নারী-পুরুষকে রাঙামাটিসহ পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকায় মাথাপিছু এক হাজার টাকা উৎকোচের বিনিময়ে প্রবেশ করার সুযোগ করে দিতো। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই কাউখালীর মঘাইছড়ি ইটভাটা সংলগ্ন চট্টগ্রাম-রাঙামাটি মহাসড়কে সশস্ত্র অবস্থায় সাদা পোষাকে চাঁদাবাজী শুরু করে।

তার এহেন অনৈতিক কর্মকান্ড চলতে থাকায় স্থানীয় চেয়ারম্যান মেম্বারদের সহযোগীতায় উত্তেজিত জনতা তাকে আটক করে।
ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত ৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য বর্ণা চাকমা জানান, মানুষ প্রবেশ এবং বাহির হওয়ার নিষিদ্ধ থাকার পরও মাথাপিছু এক হাজার টাকা নিয়ে মানুষকে পাহাড়ে প্রবেশ করার সুযোগ দিচ্ছিলেন সাদা পোষাকধারী অভিযুক্ত এই এসআই। আমরা খবর পেয়ে এলাকার লোকজনকে সাথে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে সে মটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। পরে উত্তিজিত জনতা নগদ ৬০০০ হাজার টাকাসহ তাকে হাতেনাতে আটক করে মঘাইছড়ি পুলিশ ক্যাম্পে সোপর্দ করে।

এদিকে, খবর পেয়ে কাউখালীর দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আরিফুল ইসলাম, রাঙ্গুনীয়া সার্কেলের এএসপি মোঃ আবুল কালাম, কাউখালী থানার ওসি মোঃ শহিদুল্লাহ-পিপিএম, রাঙ্গুনীয়া থানার ওসি সাইফুল ইসলামসহ পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। পরে কাউখালী থানা পুলিশ তাকে রাঙ্গুনীয়া পুলিশের হাতে হস্তান্তর করে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আরিফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, যেহেতু বিষয়টি পুলিশের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে সেহেতু তার বিরুেদ্ধ পুলিশই অফিসিয়ালি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

রাঙ্গুনীয়া সার্কেলের এএসপি মোঃ আবুল কালাম জানান, বিষয়টি আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। তিনি জানান, এমন গর্হিত অপরাধের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তার বিরুদ্ধ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

কাউখালীর ঘাগড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জগদিশ চাকমা জানান, রানীহাট পুলিশ ফাড়ির আইসি মোঃ শহিদুল ইসলাম গত এক সপ্তাহে অভিযুক্ত এসআই মাথাপিছু এক হাজার টাকার বিনিময়ে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা কয়েকশ নারী-পুরুষকে প্রবেশ করার সুযোগ দিয়ে লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তার এহেন কারনে হুমকির মুখে পড়েছে রাঙামাটিসহ আশেপাশের এলাকাগুলোর পরিবেশ।

Print Friendly and PDF

———