চট্টগ্রাম, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০ , ২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সংঘর্ষের ঘটনায় ৩০ নেতাকর্মী আহত

চবি ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষের পর আটক অর্ধশতাধিক

প্রকাশ: ৫ মার্চ, ২০২০ ৯:৩০ : পূর্বাহ্ণ

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) শাখা ছাত্রলীগের দুইপক্ষের মধ্যে বুধবার (০৪ মার্চ) দিনগত গভীর রাতে ফের সংঘর্ষে ঘটনায় প্রায় ৩০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় এফ রহমান হলে অভিযান চালিয়ে ছাত্রলীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার রাত ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির উপস্থিতিতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের এ এফ রহমান হলে শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক সংগঠন সিক্সটি নাইন ও বিজয় গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এর আগে বুধবার বিকেলেও ছাত্রলীগের দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বুধবার রাত দেড়টার দিকে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপগ্রুপ বিজয় ও কর্নকডের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় এফ রহমান ও আলাওল হলে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো চালায় নেতাকর্মী। এ ছাড়া দুই হলের লাইট নিভিয়ে প্রতিপক্ষের ওপর হামলা চালালে দু’পক্ষের প্রায় ৩০ জন ছাত্রলীগের নেতাকর্মী আহত হয়। পরে হলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে।

গত সোমবার বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপগ্রুপ কনকর্ড ও বিজয়ের কর্মীদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার মীমাংসা করতে গেলে ২০১৭-১৮ হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ও বিজয় গ্রুপের সদস্য আবীর হাসান চড়-থাপ্পড় দেন কনকর্ডের বোরহানকে। এ পূর্ব শত্রুতার জেরে গতকাল আবীরকে মারধর করেন বিজয়ের নেতাকর্মীরা। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে বিজয় গ্রুপ ও শাহজালাল হলের সামনে কনকর্ড গ্রুপের সদস্যরা অবস্থান নেন। এ নিয়ে দিনভর বিশ্ববিদ্যালয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এ সময় দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

পরে রাত দেড়টার দিকে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় দু’পক্ষই। এ সময় কনকর্ডের সাথে তাদের বিভিন্ন উপগ্রুপ ও যুক্ত হয়ে বিজয় গ্রুপের নেতা কর্মীদের উপর হামলা করে। আহতদের মধ্যে ১০ জনকে রাতেই চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মনিরুল হাসান বলেন, দুটি গ্রুপকে বারবার শান্ত থাকতে বলা হলেও তারা সংঘর্ষে জড়িয়েছে। এ ঘটনায় অনেকে আহত হয়েছে। পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলছে।

Print Friendly and PDF

———