চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০ , ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফের ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হচ্ছে

প্রকাশ: ৬ মার্চ, ২০২০ ৫:১২ : অপরাহ্ণ

নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ায় ভারত থেকে আবার পেঁয়াজ আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের ব্যবসায়ীরা। আগামী ১৫ মার্চ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করতে তারা সরকারের অনুমতি চেয়েছেন।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সভাপতিত্বে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক বৈঠকে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। দেশটির খাদ্য ও ভোক্তা অধিকার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী রাম বিলাস পাসোয়ান টুইটারে পোস্ট দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এ ঘোষণার পাঁচ দিন পর ২ মার্চ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের নির্দেশনা জারি করা হয়।

ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের মহাপরিচালক অমিত যাদবের সই করা ওই নির্দেশনায় গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হওয়া পেঁয়াজ রপ্তানিতে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের কথা বলা হয়েছে। এতে ১৫ মার্চ থেকে এর কার্যকর হবে বলে জানানো হয়েছে।

এরপর হিলি স্থলবন্দরের ১০ আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ২৫ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি চেয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্ভিদ সংঘ নিরোধ কেন্দ্রের অনলাইনে আবেদন করেছে।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক নাজমুল ও আহম্মেদ আলী সরকার ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘এ নির্দেশনার কপি ভারতীয় রপ্তানিকারকদের মাধ্যমে আমরা হাতে পেয়েছি। তাতে পেঁয়াজের ন্যূনতম কোনো রপ্তানিমূল্য নির্ধারণ করা হয়নি। তাই ভারত থেকে যে দামে পেঁয়াজ কিনব সেই দামেই এলসির মাধ্যমে দেশে আমদানি করতে পারব। আমরা উদ্ভিদ সংঘনিরোধ কেন্দ্রে আইপির জন্য আবেদন করেছি। অনুমোদন পেলে ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করে পেঁয়াজের এলসি খোলা হবে। এছাড়াও আসন্ন রমজানে দেশের বাজারে পেঁয়াজের বাড়তি চাহিদাকে ঘিরে এলসি খোলা হবে।’

পাঁচ মাস পর এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ভারত সরকার। অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির কারণে গত ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত। এবার সে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে পেঁয়াজের ফলন ভালো হওয়ায় রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় দেশটি।

Print Friendly and PDF

———