চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০ , ২৫ আষাঢ়, ১৪২৭

রামগড়ের নিখোঁজ সিএইচসিপিকে ১০ দিনপর উদ্ধার

রামগড় প্রতিনিধি প্রকাশ: ২০ মার্চ, ২০২০ ৮:৩৫ : অপরাহ্ণ

খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলাধীন বৈধ্যপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিক হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) শুভ কুমার ত্রিপুরা (২৯) কে ১০ দিন পর নেত্রোকোনার জেলার দুর্গাপুর উপজেলার চন্দিগড় এলাকার নয়ন জুগি অনাতাশ্রম থেকে উদ্ধার করেছে রামগড় থানা পুলিশ। সে পারিবারিক কলহের কারণে স্বেচ্ছায় ঐ আশ্রমে আশ্রয় নেন বলে স্বীকার করেছে।

এরআগে ১০ মার্চ সকাল থেকে নিখোঁজ রয়েছে দাবী করে তার স্ত্রী ১১ মার্চ রামগড় থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করে। শুভ কুমার ত্রিপুরা উপজেলার ২নং পাতাছড়া ইউনিয়নে সতন কুমার ত্রিপুরার ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুভ কুমার ত্রিপুরা গত মঙ্গলবার (১০ মার্চ) প্রতিনিধিনের ন্যায় বৈধ্যপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে দায়িত্ব পালনের উদ্দেশ্যে সকাল ৮টার সময় বাড়ি থেকে বের হন। বিকেলে বাড়ি ফিরে না আসায় তার পরিবার সম্বাব্য সব জায়গায় খোঁজ করে ও তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেলে পরদিন তার স্ত্রী রামগড় থানায় এসে সাধারণ ডায়রী করেন।

তার স্ত্রী শুভা রানী ত্রিপুরা জানান, স্বামীর সাথে দীর্ঘ দিন পারিবারিক বিরোধ চলছিলো। তিনি বাবার বাড়িতে থাকেন স্বামী তার নিজ বাড়িতে থাকেন। পারিবারিক বিরোধে স্বামী অভিমান করে ঘর ছেড়ে আত্মগোপনে যান। তবে তিনি আর বিরোধে জড়াবেননা বলে স্বীকারোক্তি প্রধান করেন। তিনি আরো জানান, শুভ নিখোঁজের পর ৩ লাখ টাকা শুভর নম্বর থেকে মুক্তিপণ দাবী করা হয় শেষ পর্যন্ত ২৫ হাজার টাকা মুক্তিপণ স্বরুপ প্রধান করেন।

উদ্ধার হওয়া শুভ ত্রিপুরা জানান, পারিবারিক অশান্তি থেকে বাঁচতে তিনি গাঢাকা দিতে চেয়েছেন। নোত্রোকার আশ্রমের মোবাইল নম্বরে কথা বলে সেচ্ছাশ্রমে থাকার শর্তে সে আশ্রমটিতে আশ্রয় নেয়। তবে শুভ তার ব্যবহৃত মোবাইল সিম দুটি তার কাছেই বন্ধ করে রাখেন স্ত্রীর নিকট কোন ধরণের মুক্তিপণ দাবী করেননি বলে জানান।

রামগড় থানা অফিসার ইনচার্জ সামসুজ্জামান জানান, থানায় ডায়রীভুক্ত করার পর পুলিশ সম্বাব্য সব জায়গায় খোঁজতে থাকে পরে প্রযুক্তির মাধ্যমে তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়। শুভকে তার পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে মুক্তিপনের ব্যাপারটি খতিয়ে দেখা হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly and PDF

———