চট্টগ্রাম, রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০ , ১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শাবনূরের কারণে আত্মহত্যা করেছিলেন সালমান শাহ: পিবিআই

প্রকাশ: ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২:০০ : অপরাহ্ণ

প্রয়াত চিত্রনায়ক সালমান শাহ’র মৃত্যুর ঘটনা হত্যা নয়, বরং পারিবারিক কলহে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার, এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পিআইবি প্রধান বনজ কুমার মজুমদার। এসময় তিনি বলেন, ‘১৬৪ ধারায় ১০ জনের জবানবন্দি নিয়েছে পিবিআই। নতুন করে আলামত হিসেবে একটি ফ্যান জব্দ করেছে পিবিআই। সালমান শাহ এর গলায় অর্ধ চন্দ্রাকৃতির গাঢ় কালো রঙের দাগ পাওয়া গেছে। শরীরের কোথাও কোনো আঘাতের চিহ্ন ছিলো না। কোনো বিষক্রিয়ার চিহ্ন পাওয়া যায়নি।’

বনজ কুমার আরও বলেন, ‘সালমানের এক বন্ধু (মো সুমিত রহমান) জবানবন্দিতে বলেন, সালমান ছিলেন অভিমানী। বন্ধুদের সঙ্গে ঝগড়া হলেও নিজের রক্ত দিয়ে চিঠে লিখতেন তিনি। মায়ের সঙ্গে ঝগড়া করেও ওষুধ-স্যাভলন খেয়েছেন সালমান। নায়িকা শাবনূরের সঙ্গে অতিরিক্ত ঘনিষ্ঠতার কারণে তার পরিবারে অশান্তি ছিলো শুরু থেকেই। মারা যাবার দিন সালমান তার মামা আলমগীর মো. কুমকুমকে ফোনে তার স্ত্রীকে তালাক দেবার কথা জানান। চলচ্চিত্র অভিনেতা মো. আশরাফুল হক ডন জবানবন্দিতে সালমানের সঙ্গে তার মায়ের বনিবনা ছিলো না বলে জানান। আর, একজন কো আর্টিস্ট হিসেবে যেমন সম্পর্ক হওয়ার কথা, তেমনটাই ছিলো বলে পিবিআইকে জানায় শাবনূর। মূলত শাবনূরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা, স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হওয়া এবং মায়ের সঙ্গে নানা সময় বনিবনা না হওয়া, সব মিলিয়ে আত্মহত্যা করেছেন সালমান শাহ।

বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ও সফল অভিনেতা ছিলেন সালমান শাহ। তার প্রকৃত নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। টেলিভিশন নাটক দিয়ে তার অভিনয় জীবন শুরু হলেও ১৯৯০ এর দশকে তিনি চলচ্চিত্রে অন্যতম জননন্দিত শিল্পী হয়ে উঠেন। ১৯৯৩ সালে তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত কেয়ামত থেকে কেয়ামত মুক্তি পায়। জনপ্রিয় এই নায়ক নব্বইয়ের দশকের বাংলাদেশে সাড়া জাগানো অনেক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তিনি সর্বমোট ২৭টি চলচ্চিত্র অভিনয় করেন এবং সবকয়টিই ছিলো ব্যবসাসফল।

সালমান শাহ ১৯৯৬ সালের ৬ই সেপ্টেম্বর পরলোক গমন করেন। রাজধানী ঢাকার ইস্কাটনে তার নিজ বাস ভবনে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হলেও তার মৃত্যু নিয়ে রহস্য রয়ে যায়।

Print Friendly and PDF

———