চট্টগ্রাম, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ , ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে ৪৫ টাকায় পেঁয়াজ কিনতে শত মানুষের লাইন

প্রকাশ: ১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ৮:২০ : অপরাহ্ণ

কেউ শিক্ষক, কেউ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী, রয়েছেন পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর পদবীর কর্মকর্তাও; বাদ নেই রিকশা চালক, অটোরিকশা চালক বা আরো নিম্ন আয়ের মানুষ। সবাই এক সারিতে দাঁড়িয়েছেন এক কেজি পেঁয়াজ কেনার জন্য।

এই চিত্র রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগরীর দামপাড়া এলাকার। টিসিবি উদ্যোগে সরকার নির্ধারিত ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছিল ট্রাকের করে। প্রত্যেকে এক কেজি করে পেঁয়াজ কেনার সুযোগ পাচ্ছেন। কিন্তু দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে পেঁয়াজ কিনতে এক/দেড় ঘণ্টা সময় লেগে যাচ্ছে।

পেঁয়াজ কিনতে লাইনে দাঁড়ানো বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মী আবছার উদ্দিন বলেন, কোনো উপায় নেই ভাই। দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে হলেও এক কেজি পেঁয়াজ কিনতে হবে। খোলা বাজারে ২০০ টাকার নিচে পেঁয়াজ নেই। এই অগ্নিমূল্যে সবার পক্ষে পেঁয়াজ কিনে নিত্য রান্নার প্রয়োজন সামাল দেয়া সম্ভব হয় না। তাই কষ্ট হলেও লাইনে দাঁড়িয়ে এক কেজি পেঁয়াজ সংগ্রহ করছেন।

একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মিনতি প্রভা বলেন, নিরূপায় হয়ে এমন কষ্ট করে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে। এক কেজি পেঁয়াজ সংগ্রহ করতে এক ঘণ্টা সময় লেগে যাচ্ছে। স্বল্প আয়ের মানুষের ২০০-২৫০ টাকায় পেঁয়াজ কেনার সামর্থ নেই। তাই বাধ্য হয়েছেন।

সরেজমিন দেখা যায়, ট্রাকে করে টিসিবি নিয়োগকৃত শ্রমিকরা মিশর থেকে আমদানিকৃত বড় সাইজের পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। লাইনে দাঁড়ানো সবাইকে এক কেজি করে পেঁয়াজ দেয়া হলেও কোনো ব্যাগ বা প্যাকেট তারা দিচ্ছেন না। অনেকে মোটর সাইকেল নিয়ে পেঁয়াজ কিনতে এসে হেলমেটের ভিতর পেঁয়াজ ভরে নিয়ে যাচ্ছেন। আবার অনেকে সন্তানের স্কুল ব্যাগে করে পেঁয়াজ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। ৪/৫টি পেঁয়াজ এক কেজি ওজন হচ্ছে।

ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রেতা টিসিবির নিয়োগকৃত এক শ্রমিক নাম প্রকাশ না করে বলেন, সবাইকে এক কেজি করে পেঁয়াজ দিচ্ছেন। কাউকে বেশি দেয়ার সুযোগ নেই।

প্রতিদিন চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচটি পয়েন্টে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি চলবে বলে জানান এই শ্রমিক।

Print Friendly and PDF

———