চট্টগ্রাম, রোববার, ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ , ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

দুর্ঘটনার ৮ ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

প্রকাশ: ১২ নভেম্বর, ২০১৯ ১:৫১ : অপরাহ্ণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় আন্তঃনগর তূর্ণা নিশীথা ও আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষের ঘটনায় ৮ ঘণ্টা পর ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেন দুটি উদ্ধার করা হলে এ রুটে ট্রেন চলাচল শুরু হয়।

এর আগে সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশনে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষ হয়।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। দুই ট্রেনের শতাধিক যাত্রী আহত হয়েছেন।

ভয়াবহ এই ট্রেন দুর্ঘটনার পর ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালে উদ্ধারকারী রিলিফ ট্রেন এসে দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেন দুটি উদ্ধারে কাজ শুরু করে। বেলা ১১টার দিকে উদ্ধার কাজ শেষ হয়।

এদিকে ট্রেন দুর্ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় তিনি কসবার মন্দবাগ রেলস্টেশনে পৌঁছান। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, তূর্ণা নিশীথা ট্রেনের লোকোমোটিভ মাস্টার সিগনাল ভঙ্গ করেছেন। আমরা বিস্তারিত জানার জন্য জেলা প্রশাসন ও রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করেছি।

রেলমন্ত্রী বলেন, নিহতের পরিবারের ক্ষতি টাকা দিয়ে পূরণ করা সম্ভব না। তবুও রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ১ লাখ করে টাকা এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকা করে দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, এখানে উদয়ন এক্সপ্রেসের কোনো ত্রুটি দেখছি না।

অপরদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশনে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায় দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগে তূর্ণা নিশীথার লোকোমোটিভ মাস্টার ও সহকারী মাস্টারকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

Print Friendly and PDF

———