চট্টগ্রাম, বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯ , ২৮শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে ফেসবুকে সম্পর্ক গড়ে স্কুলছাত্রীকে ব্ল্যাকমেইল, খালুসহ গ্রেফতার ৩

প্রকাশ: ১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ১২:৪২ : পূর্বাহ্ণ

ফেসবুকে স্কুলছাত্রী কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক তৈরির পর ইন্টারনেটে ‘অশ্লীল ছবি’ ছড়ানোর হুমকি দিয়ে টাকা দাবির অভিযোগে তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে একজন ওই কিশোরীর আপন খালু। মূলত খালুই নিজের পরিচয় গোপন করে কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। খবর সারাবাংলা

বুধবার (১৬ অক্টোবর) ঘটনার শিকার কিশোরীর খালুসহ তিন জনকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে পাহাড়তলী থানা পুলিশ। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তিনটি মোবাইল সেট, যেখানে ওই কিশোরীর ব্যক্তিগত বিভিন্ন আপত্তিকর ছবি পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতার তিন জন হলেন— খালু জামাল হোসেন (৩০) ও তার দুই বন্ধু তানভীর আহমেদ রিপন (২৬) ও মো. রাজীব (২৩)। আর ঘটনার শিকার কিশোরী নগরীর পাহাড়তলী থানা এলাকার একটি বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

পাহাড়তলী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) পলাশ ঘোষ জানান, জামাল ফেসবুকে ছদ্মনামে একটি আইডি খুলে ওই কিশোরীকে বন্ধুত্বের অনুরোধ পাঠান। কিশোরী সেটা গ্রহণের পর নিয়মিত কথাবার্তার মাধ্যমে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একপর্যায়ে জামাল তাকে মেসেঞ্জারে ‘আপত্তিকর’ ছবি পাঠানোর অনুরোধ করেন। কিশোরী অপারগতা জানালে জামাল তার আইডি থেকে কিছু ছবি নিয়ে সেগুলো এডিট করে অশ্লীল হিসেবে তৈরি করে তার মেসেঞ্জারে পাঠায় এবং সেগুলো ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

এতে কিশোরী ভয় পেয়ে তার ব্যক্তিগত কয়েকটি আপত্তিকর ছবি জামালের মেসেঞ্জারে দেন। তখন জামাল সেই ছবি প্রকাশের হুমকি দিয়ে টেলিফোনে কিশোরীর মায়ের কাছে ১০ লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অপারগতা জানালে জামাল ওই কিশোরীর ছবি দিয়ে একটি ফেসবুক আইডি খোলেন এবং সেটা কিশোরীকে দেখিয়ে সেখানে আপত্তিকর ছবিগুলো প্রকাশের হুমকি দেন। এরপর মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) রাতে একটি মেমোরি কার্ড কিশোরীর বাসায় পাঠান, যাতে আপত্তিকর ছবিগুলো ছিল।

এসআই পলাশ বলেন, ‘রাতে কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা থানায় আসেন। অভিযোগ গ্রহণ করে এবং কিশোরী ও তার মায়ের বক্তব্য শুনে আমরা আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করি। যে মোবাইল নম্বর থেকে কিশোরীর মাকে ফোন করে টাকা দাবি করা হয়েছিল, সেই নম্বরের সূত্রে প্রথমে জামাল ও পরে বাকি দু’জনকে গ্রেফতার করি।’

এ ঘটনায় কিশোরীর মায়ের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় তিন জনকে বুধবার বিকেলে আদালতে হাজির করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে এসআই পলাশ জানিয়েছেন।

Print Friendly and PDF

———