চট্টগ্রাম, শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯ , ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিজিবির বাধাঁয় রামগড় সীমান্তে কাঁটা তারের বেড়া নির্মাণ কাজ বন্ধে সম্মত বিএসএফ

রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি প্রকাশ: 23 October, 2019 7:23 : PM

খাগড়াছড়ির রামগড়স্থ কাশিবাড়ী সীমান্তের সাবরুমের কাঠালবাড়ীতে সীমান্তের শূন্যরেখার ৫০ গজের মধ্যে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) কর্তৃক সীমান্ত আইন উপেক্ষা করে কাঁটাতারের বেড়া নির্মানকে কেন্দ্র করে দু’দেশের সীমান্তে তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কমান্ডার পর্যায়ের পতাকা বৈঠকের পর পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গত ২১ অক্টোবর সোমবার সকালে রামগড়স্থ কাশিবাড়ী সীমান্তের আন্তর্জাতিক সীমানা পিলার ২২১৭/৪ আর বি সংলগ্ন ভারতের সাবরুমস্থ কাঁঠালবাড়ি সীমান্তে আন্তর্জাতিক আইন উপেক্ষা করে কাঁটাতারের বেড়া নির্মান শুরু করে বিএসএফ। এসময় বাংলাদেশ সীমান্তে দায়িত্বরত বিজিবি সদস্যরা বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সীমান্ত আইনের ধারা অনুয়ায়ী নির্মান কাজে বাঁধা প্রদান করে। এসময় বিজিবির বাঁধা স্বত্বেও বিএসএফ সেখানে অতিরিক্ত সৈন্য মোতায়েন করে পুনরায় কাজ শুরু করে, এক পর্যায়ে রামগড়স্থ ৪৩ বিজিবিও সীমান্তের বাংলাদেশ অংশে অতিরিক্ত বিজিবি সদস্যের উপস্থিতি বাড়ায়। ফলশ্রুতিতে দু’দেশের সীমান্তে এ নিয়ে তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হলে সীমান্ত নিকটবর্তী উভয় দেশের বাসিন্দারা তাৎক্ষনিক ভাবে বাড়ি-ঘর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নেয়। পরদিন ২২ অক্টোবর মঙ্গলবার বিজিবির অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন ও বাঁধা স্বত্বেও আবারো নির্মান কাজ শুরু করে বিএসএফ। পরক্ষনে রামগড়স্থ ৪৩ বিজিবি সীমান্তে বেড়া নির্মানের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে এক প্রকার হুঁশিয়ারি দিলে বিএসএফ তাদের নির্মান কাজ বন্ধ রাখে। এমতাবস্থায় বিএসএফ চিঠির মাধ্যমে বিজিবিকে পতাকা বৈঠকের আহবান জানালে এদিন দুপুরে ৪৩ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল তারিকুল হাকিমের নেতৃত্বে উপ অধিনায়ক মেজর জাকির হোসেনসহ বিজিবির একটি প্রতিনিধি দল সাব্রুমের লুধুয়াছড়া সংলগ্ন আইল্যমারা নামক স্থানে পতাকা বৈঠকে মিলিত হয়।

বিকেলে বৈঠক ফেরত বিজিবির একটি সূত্র জানায়, আন্তর্জাতিক সীমান্ত আইনে দেড়শ গজের পরে স্থাপনা নির্মানের কথা থাকলেও বিএসএফ কর্তৃক পঞ্চাশ গজের ভেতরে স্থাপনা নির্মান নিয়ে পতাকা বৈঠকে বিজিবির তীব্র আপত্তির মুখে বিএসএফ তাদের কাঁটাতারের বেড়া নির্মান বন্ধ রাখার ঘোষনা দেয় এবং বিষয়টি নিয়ে দু’দেশের সীমান্ত পর্যায়ের উচ্চ প্রতিনিধিদলের বৈঠকের মাধ্যমে সুরাহা করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করে। এছাড়া বৈঠকের পর সীমান্তের উক্ত পয়েন্ট থেকে দু’দেশের অতিরিক্ত সৈন্য প্রত্যাহার করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছে সূত্রটি।

Print Friendly and PDF

———