চট্টগ্রাম, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ , ৫ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

১৫ লাখ লোক বাংলাদেশকে ফেরত নিতে বলা হবে: আসামের অর্থমন্ত্রী

প্রকাশ: ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১:৩৩ : পূর্বাহ্ণ

আসামের অর্থমন্ত্রী বিজেপি নেতা হিমন্ত বিশ্ব শর্মা ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ১৮-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়া ১৯ লাখ মানুষের মধ্যে ১৪-১৫ লাখ অবৈধ অভিবাসীকে ফেরত নিতে বাংলাদেশ সরকারকে বলবেন তারা।

হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, বাংলাদেশ সরকার ভারতের বন্ধু এবং আমাদের সহযোগিতা করছে। অবৈধ অভিবাসীদের বিষয় তুলে ধরা হলে তারা নিয়মিতই তাদের ফেরত নিচ্ছে। কিন্তু এই সংখ্যা খুব বেশি না। কিন্তু এখন তাদের চিহ্নিত করার একটি প্রক্রিয়া আমাদের রয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা বেশ কিছু সংখ্যক অবৈধ অভিবাসীকে চিহ্নিত করতে পেরেছি এবং তা চূড়ান্ত করার চেষ্টা করছি। আসামের আদিবাসীরা নিজেদের জায়গা ফিরে পাওয়ার আগ পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া চলবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা বলেছেন তা আমরা আমলে নিচ্ছি না। অবৈধ বিদেশিরা তার ভোটব্যাংক।

সিনিয়র এই বিজেপি নেতা বলেন, মানবাধিকার লঙ্ঘনের কিছু ঘটবে না এবং কাউকে আটক করা হবে না। আমাদের কাছে অনেক মানুষের আধার তথ্য রয়েছে। কোনও মানবাধিকার লঙ্ঘন হবে না। আমরা বাংলাদেশকে তাদের মানুষদের ফিরিয়ে নিতে বলবো।

তিনি আরও বলেন, এনআরসিতে মানুষের নাম থাকার অর্থ এই নয় যে, তাদের বিদেশি বলা হবে এবং বাংলাদেশে পাঠানো হবে। এখানে আইনি প্রক্রিয়া রয়েছে, যার মধ্য দিয়ে নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণ করার সুযোগ পাবেন তারা। কিন্তু এর আগ পর্যন্ত তারা দেশের কোনও রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারবেন না।

হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, ১৯৭১ সালের পরবর্তী সময়ে শরণার্থী হিসেবে যারা এসেছেন, তারা সমস্যায় পড়বেন। আমরা তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল। কিন্তু তালিকায় স্থান পেতে অনেকেই এনআরসি প্রক্রিয়াকে প্রভাবিত করেছেন। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখবো। আসামের জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি এনআরসি। কারণ, পুরো প্রক্রিয়ায় মাত্র ১৯ লাখ মানুষ বাদ পড়েছে।এদের মধ্যে ৫-৬ লাখ মানুষ ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ থেকে আসামে এসেছে।

এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘আমরা সুস্পষ্টভাবে বলতে চাই, ১৯৭১ সালের পরে আমাদের বাংলাদেশ থেকে কোনো লোক ভারতে যাননি। যারা গিয়েছেন, তারা আগেই গিয়েছেন। ওই দেশ থেকে লোক যেমন এ দেশে এসেছেন, তেমনি আমাদের দেশ থেকেও গিয়েছেন। কাজেই এনিয়ে আমাদের চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই।’

উল্লেখ্য, শনিবার (৩১ আগস্ট) সকালে প্রকাশ করা এনআরসির চূড়ান্ত তালিকায় আসামের বাসিন্দা ভারতীয় নাগরিকদের চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রায় ১৯ লক্ষ মানুষ এই তালিকার বাইরে থাকায় তাদের ভবিষ্যত অনিশ্চিত। ২৫ শে মার্চ ১৯৭১ এর আগে যারা আসামে ঢুকেছিলো তাদেরই অবৈধ বলছে ভারত সরকার। এরআগে ১৯৫১ সালেও এমন নাগরিক তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিলো।

Print Friendly and PDF

———