চট্টগ্রাম, সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ , ১লা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আজ ঈদুল আজহা: ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত হওয়ার দিন

প্রকাশ: ১২ আগস্ট, ২০১৯ ৫:৫৪ : পূর্বাহ্ণ

আজ ১০ জিলহজ্ব ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত হয়ে পূর্ণ ভাবগাম্ভীর্যে মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে।

ইসলাম ধর্মের বিশ্বাস অনুযায়ী, প্রায় সাড়ে চার হাজার বছর আগে মহান আল্লাহ নবী হযরত ইব্রাহীমের ঈমানের পরীক্ষা নেয়ার উদ্দেশ্যে তার একমাত্র ছেলে হযরত ইসমাইলকে কোরবানি করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। নবী ইব্রাহীমের সেই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার স্মরণে এ দিন সচ্ছল মুসলিমরা পশু কোরবানি করে থাকেন।

যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে সারাদেশে আজ সোমবার (১২ আগস্ট) পবিত্র ঈদুল আজহা পালিত হচ্ছে। মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশের ঘরে-ঘরে শুরু হবে আয়োজন।

এই ঈদ সম্পর্কে পবিত্র কোরান শরিফের সূরা কাওসারের দুই নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, ‘তোমার প্রতিপালকের উদ্দেশে সালাত আদায় করো ও পশু কোরবানি করো।’ সেই উদ্দেশ্যে সকালে দল বেঁধে ঈদের জামাতে সামিল হবেন সকল মুসলমান পুরুষ, সুবিধা সাপেক্ষে অনেক জামাতে নারীরাও; নামাজ আদায় শেষে পরিচিত-অপরিচিত, স্বজন, ছোট-বড় নির্বিশেষে সবাই করবেন কোলাকুলি। এরপর প্রতিপালকের কাছে নিজের প্রিয় বস্তু উৎসর্গ করার নিয়তে সামর্থ্যবানরা পশু কোরবানি করবেন। ধনি-দরিদ্র নির্বিশেষে সবাই নিজেদের মধ্যে এই আনন্দ উপভোগ করবেন এই দিনে।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে তার বাণীতে কোরবানির মর্ম অনুধাবন করার আহ্বান জানান। বাণীতে তিনি বলেন, ‘ত্যাগের শিক্ষা আমাদের ব্যক্তি ও সমাজ জীবনে প্রতিফলিত হলেই প্রতিষ্ঠিত হবে শান্তি ও সৌহার্দ্য। মহান আল্লাহর কাছে কোরবানি কবুল হওয়ার জন্য শুদ্ধ নিয়ত ও উপার্জন থাকা আবশ্যক।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাণীতে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ ও মুসলিম উম্মাহর উত্তরোত্তর উন্নতি, সমৃদ্ধি এবং শান্তি কামনা করেছেন। বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আসুন, আমরা সকলে পবিত্র ঈদুল আজহার মর্মবাণী অন্তরে ধারণ করে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনকল্যাণমুখী কাজে অংশ নিয়ে বৈষম্যহীন, সুখী, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ গড়ে তুলি।’

Print Friendly and PDF

———