চট্টগ্রাম, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯ , ১১ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

স্মার্টফোনের লোভে বন্ধুর হাতেই খুন হয় ইকন

এম.জুনায়েদ প্রকাশ: ৩০ জুলাই, ২০১৯ ১০:৫৩ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে সাব্বির উদ্দীন ইকন (১৭) নামে এক খুনের মূল রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। ঋণগ্রস্থ হয়ে ঋনের টাকা পরিশোধের লক্ষ্যে স্মার্টফোন ছিনিয়ে নিতে ছুরিকাঘাত করে বন্ধু ইকনকে হত্যা করে তারই বন্ধু তনয় বড়ুয়া তনা (২৩)।

৩০ জুলাই মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যেমে এ তথ্য নিশ্চিত করছেন আতিরিক্তি পুিলশ সুপার, হাটহাজারী সার্কেল আব্দুল্লাহ আল মাসুম।

তিনি বলেন, ভিকটিম সাব্বির উদ্দিন ইকনের লাশ উদ্ধারের পর তার বাবা সাহাবুদ্দীন বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং২৩। ২৬/৭/১৯ ইং। এরপর এ হত্যাকান্ডের তদন্ত করতে গিয়ে আলামত ও আধুনকি প্রযুক্তির মাধ্যমে গত ২৭ জুলাই ঘটনার সাথে জড়িত তনয় বড়ুয়া তনা (২৩) নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি ছুরি, একটি টেলিভিশন, একটি উড়না উদ্ধার করে। জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ এ ১৬৪ ধারায় জবান বন্দীতে সে ইকনকে হত্যা করার কথা স্বীকার করে।

সে তার জবান বন্ধীতে বলেন, ইকনের সাথে তার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। সে ঋণগ্রস্থ থাকায় ইকনের স্মাটফোনটির উপর চোখ পড়ে। স্মার্টফোনটি নেয়ার লোভে ঘটনার দিন ইকনকে সাথে নিয়ে জন্মদিনের কেক কাটবে বলে একটি ছুরি নিয়ে যায়। সে ছুরি দিয়েই ইকনকে গলা কেটে হত্যা করে।

তনয় বড়ুয়া উপজেলার আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের মৃত বাবন বড়ুয়ার পুত্র। বর্তমান পালক পিতা হচ্ছে সুন্দরপুর দক্ষিন ছিলোনিয়ার অশোক কুমার বড়ুয়া।

জানা যায়, ফটিকছড়ি বিবিরহাটস্থ চৌধুরী ভবনের বাসিন্দা মোঃ সাহাব উদ্দীনের পুত্র সাব্বির উদ্দীন ইকন (১৭) ২৫ শে জুলাই বৃহস্পতিবার আনুমানকি সন্ধ্যা ৬ টার সময় বিবিরহাট ২নং রোড়ের আলী আকবর রোডস্থ হাজারী সাউন্ড হতে টেলিভিশন মেরামত করে
ফেরার পথে নিখোঁজ হয়। নিখোজের পর বন্ধু-বান্ধব, আত্বীয়-স্বজনরে কাছে তার কোন খোঁজ না পাওয়ায় তার পিতা সাহাব উদ্দীন ফটিকছড়ি থানায় একটি নিখোজ ডায়েরী করেন।

নিখোজের একদিন পর শুক্রবার দুপুর ২টায় চট্টগ্রাম খাগড়াছড়ি সড়কের পাইন্দং নতুন মসজিদ সংলগ্ন আকাশি বাগানে গলা কাটা অবস্থায় তার লাশ দেখেত পায় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরেণ করে।

Print Friendly and PDF

———