চট্টগ্রাম, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ , ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নিষেধাজ্ঞা শেষ

বঙ্গোপসাগরের পথে জেলেরা

আখতার হোসাইন, সিনিয়র রিপোর্টার প্রকাশ: ২৩ জুলাই, ২০১৯ ৮:৩৯ : অপরাহ্ণ

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার উপর দেয়া নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আজ । এরই মধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের জেলেরা বঙ্গোপসাগরের পথে যাত্রা শুরু করেছে। ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে বঙ্গোপসাগরের গভীর সমুদ্রে জেলেরা মাছ শিকারে প্রস্তুতি নিয়ে যাত্রা করেছে। অনেকে আগামীকাল বুধবারে সকালে যাওয়ার জন্যও প্রস্তুতি নিচ্ছে।

মৎস্য অধিদফতরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় উপ-পরিচালক বজলুর রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, ৬৫ দিন জেলেদের মনিটরিং করেছি। প্রতি সপ্তাহে তাদের সঙ্গে মিটিং করে সচেতনতা সৃষ্টিও করেছি। মোবাইল কোর্টও পরিচালনা করেছি। এছাড়া প্রত্যেক জেলেকে সরকারি সহায়তার চাল দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন আমরা আশানুরূপ ছাড়া পেয়েছি জেলেদের। তারা আমাদের নিষেধাজ্ঞার প্রতি সম্মান দেখিয়েছে। তাদের কষ্ট হলেও তারা সরকারের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছে। তাই তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

সকালে ফিশারীঘাট গিয়ে দেখা যায় অনেককে ধীরে ধীরে বঙ্গোপসাগরের পথে রওয়ানা দিয়েছে। অনেকে রওয়ানার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আবার তড়িগড়ি করে অনেক জেলে জাল বুনার কাজ শেষ করার চেষ্টা করছে। দেখে মনে হচ্ছে জেলে পাড়ায় আনন্দের ধুম পড়েছে। নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ায় জেলেরা ৬৫দিনের কষ্টও যেন ভুলে গেছে।

জেলে ওসমান জানান, আমরা যাওয়ার জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। ১৫দিনের প্রস্তুতি নিয়ে চাল, ডাল, কাঁচা বাজার, মাংস ইত্যাদি নিয়ে রওয়ানা দিব। আশা করি আমাদের চাহিদা মতো মাছ নিয়ে আমরা ফিরতে পারবো।

জেলে সতীস জলদাস জানান, অনেক কষ্টে দিনাতিপাত করেছি। এবারের মতো রেকর্ড পরিমান নিষেধাজ্ঞা জীবনেও দেখি নেই। পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করেছি। আজ রাতেই আমরা ট্রালার নিয়ে রাওয়ানা দিব। সৃষ্টি কর্তার নাম নিয়ে যাচ্ছি যেন আবারও পরিবারের কাছে ফিরে আসতে পারি।

জেলে বাবুল জলদাস জানান, সাগর উত্তাল হলেও আমরা সাগরে যেতে বাধ্য। কারণ আমরা এখন অনেকটা অসহায়। পরিবার পরিজন নিয়ে অনেক কষ্টে আছি।

ফিশারীঘাটের জেলেদের পাশাপাশি হালিশহর জেলে পাড়া, পতেঙ্গা জেলে পাড়া, নতুনব্রীজ এলাকার জেলেরা সাগরের পথে অনেকে রওয়ানা হয়েছে আবার অনেকে রাওয়ানার জন্য প্রস্তুত।

Print Friendly and PDF

———