fbpx

চট্টগ্রাম, শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯ , ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সোহেল তাজের ভাগিনা অপহরণের অভিযোগ

সিটিজি টাইমস ডেস্ক প্রকাশ: ১৫ জুন, ২০১৯ ৬:৩৭ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম মহানগরীর পাঁচলাইশ থানা এলাকা থেকে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ- এর ভাগ্নেকে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে।

গত ৯ জুন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হসপিটালের সামনে থেকে সৈয়দ ইফতেখার আলম ওরফে সৌরভকে অপহরণ করা হয়েছে বলে ওইদিন রাতে তার বাবা সৈয়দ মোহাম্মদ ইদ্রিস আলম পাঁচলাইশ থানায় জিডি করেন।

এদিকে শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সোহেল তাজ নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে দেয়া এক পোস্টে তার ভাগিনাকে অপরহণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

তিনি পোস্টে লিখেছেন, ‘আমার মামাতো বোনের ছেলে (ভাগিনা), সৈয়দ ইফতেখার আলম প্রকাশ (সৌরভ) কে গত রবিবার ৯ জুন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হসপিটালের সামনে থেকে অপহরণ করা হয়েছে। যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তাদেরকে অনুরোধ করছি সৌরভকে ফিরিয়ে দিতে তার পরিবারের কাছে। অন্যথায় আপনাদের পরিচয় জনসম্মুখে প্রকাশ করা হবে, ঘটনার আড়ালে কারা আছেন তা আমরা জানি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিএমপির পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাসেম ভূঁইয়া বলেন, নিখোঁজ সৌরভের পরিবার আমাদের জানিয়েছে, গত ৯ জুন কেউ একজন সৌরভকে ফোন করে জানায়, তার আইটি সেক্টরে চাকরির বিষয়ে বয়োডাটার জন্য দুজন অফিসার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নগরীর আফমি প্লাজার সামনে তার সাথে দেখা করবে। তাদের কাছে তার বায়োডাটা দেয়ার জন্য বলে। সৌরভ ওইদিন সন্ধ্যায় সেখানে যাওয়ার পর থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে।

তিনি বলেন, তার (সৌরভ) বাবা সৈয়দ মোহাম্মদ ইদ্রিস আলম ওই রাতেই থানায় জিডি করেছেন। এরপর থেকে আমরা তার নিখোঁজের বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।

ওসি বলেন, প্রাথমিক তদন্তে আমরা জেনেছি ইতোপূর্বে তাকে একাধিকবার নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এরপর সে আবার ফিরে এসেছে। তাই আমরা গুরুত্বের সাথে অভিযোগ তদন্ত করে দেখছি। যদি অপহরণের ঘটনা হয়ে থাকে তাহলে এটি অপহরণ মামলা হবে।

তবে কে বা করা তাকে এর আগেও নিয়ে গেছে সেটি পুলিশ নিশ্চিত করেনি।

পাঁচলাইশ থানার ডিউটি অফিসার এসআই আফরোজা বেগম বলেন, সৈয়দ ইফতেখার আলম (সৌরভ) নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। তবে এখনো নিখোঁজের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

তবে পুলিশের একাদিক সূত্র জানিয়েছে, একজন সাবেক মন্ত্রীর ভাগিনা নিখোঁজের বিষয়টি রহস্যজনক। তারপরও বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করে দেখছে বলে জানান তারা।

Print Friendly and PDF

———