চট্টগ্রাম, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯ , ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

হালদা দূষণে এশিয়ান পেপার মিলের বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ

সিটিজি টাইমস ডেস্ক প্রকাশ: ৩০ মে, ২০১৯ ১০:০৯ : অপরাহ্ণ

বর্জ্য ফেলে দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজননক্ষেত্র হালদা দূষণ ঘটানোয় চট্টগ্রামের এশিয়ান পেপার মিলের বিরুদ্ধে মামলাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুরে রাউজানের সত্তারঘাট এলাকায় পোনা সংগ্রহকারীদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ নির্দেশ দেন তিনি।

হালদা নদী দূষণে জড়িতদের ‘দূষণ সন্ত্রাসী’ আখ্যা দিয়ে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েপানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার তিনি বলেন, হালদা রক্ষায় আরও বড় পরিসরে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। হালদাকে দূষণের হাত থেকে বাঁচানোর পাশাপাশি হালদা পাড়ে চলমান উন্নয়ন কাজে জীব বৈচিত্র্যের পরিবেশ যাতে নষ্ট না হয়- সেটিও নিশ্চিত করা হবে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, দুপুরে হালদাপাড়ের মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় করেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব। সেখানে পোনা সংগ্রহকারীরা হালদা দূষণ নিয়ে বিভিন্ন অভিযোগ করেন। এ সময় এশিয়ান পেপার মিলের হালদা দুষণের বিষয়টিও তুলে ধরা হয়। তারা জানান, পেপার মিলের বর্জ্য বিভিন্ন খালের মাধ্যমে হালদা নদীতে গিয়ে পড়ে।

অভিযোগ শুনে সচিব একই মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রোকন উদ্দৌলাহকে এশিয়ান পেপার মিলের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দেন। বিষয়টি পরিবেশ মন্ত্রণালয়কে অবহিত করার জন্যও বলা হয়।

তিনি বলেন, “স্থানীয় বাসিন্দা এবং সংশ্লিষ্টরা আমাদের বিষয়টি জানায়। এশিয়ান পেপার মিলে ইটিপি নেই। পরিবেশ অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম অঞ্চলের পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসাইনকে অনুরোধ করা হয়েছে মামলা করতে। বিষয়টি সমন্বয় করতে আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন সচিব মহোদয়।”

মোয়াজ্জেম হোসাইন বলেন, “অতিরিক্ত সচিব মহোদয় আমাকে ফোন করেছিলেন। এশিয়ান পেপার মিলের বিষয়ে আমাদের কার্যক্রম চলমান। কিছুদিন আগে বিষয়টির দায়িত্ব আমাকে দেয়া হয়। এরপর আমরা ওই এলাকা থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছি। পরীক্ষাগারে সেসব নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিওডি, সিওডিসহ বেশিরভাগ মানমাত্রাই নেতিবাচক। পরিদর্শক দল চলতি সপ্তাহে পরিদর্শনও করেছে।”

এ বিষয়ে শুনানির জন্য কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছে নোটিস পাঠানো হয়েছে জানিয়ে মোয়াজ্জেম বলেন, ১০ জুন শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

Print Friendly and PDF

———