চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯ , ৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিশ্বকাপের পর্দা উঠছে বৃহস্পতিবার

সিটিজি টাইমস ডেস্ক প্রকাশ: ২৯ মে, ২০১৯ ৬:০৫ : অপরাহ্ণ

এই তো সেদিন অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হয়েছিল আইসিসি বিশ্বকাপের ১১তম আসর। মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত ফাইনাল ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। স্মৃতির পাতায় এখনো সেই ম্যাচটি তরতাজা হয়ে থাকলেও ক্যালেন্ডারের পাতায় চারটি বছর পেরিয়ে গেছে। ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত হওয়া সেই বিশ্বকাপের পর আরেকটি বিশ্বকাপ চলে এসেছে। তবে সেবারের নিরুত্তাপ ফাইনাল ভুলে নতুন বিশ্বকাপের দিকে নজর ভক্তদের।

ইংল্যান্ডে আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) পর্দা উঠবে আইসিসি বিশ্বকাপের ১২তম আসরের। লন্ডনের কেনিংটন ওভালে উদ্বোধনী ম্যাচে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায় মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। আসরটি শেষ হবে ১৪ জুলাই। পুরো দেড় মাস ধরে সারা পৃথিবীর ক্রিকেটপ্রেমীদের চোখ থাকবে ইংল্যান্ডে। এবার পঞ্চমবারের মতো আইসিসি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত বসছে ইংল্যান্ডে। বিশ্বের সেরা দশটি দল অংশ নিচ্ছে এই আসরে। খেলা হবে ১১টি ভেন্যুতে।

স্বাগতিক হিসাবে ইংল্যান্ডই এবার অন্যতম ফেভারিট। পারফর্মের দিক থেকেও তারা দুর্দান্ত। বিশ্বকাপ শুরুর আগে ঘরের মাটিতে পাকিস্তানকে তারা পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেছে। প্রস্তুতি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে শেষ মুহূর্তে হেরে গেলেও আফগানিস্তানের বিপক্ষে বড় জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড। সম্প্রতি ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান এবং পেসার মার্ক উড ছোট ইনজুরিতে আক্রান্ত হলেও উদ্বোধনী ম্যাচ খেলার জন্য তারা ফিট। বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড তিনবার রানার্স আপ হলেও একবারও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি।

অন্যদিকে, দক্ষিণ আফ্রিকাও এবার শক্তিশালী দল নিয়ে বিশ্বকাপ খেলতে এসেছে। প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে তারা শ্রীলঙ্কাকে ৮৭ রানে হারায়। পরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। দক্ষিণ আফ্রিকার নামের সাথে ‘চোকার’ তকমাটি লেগে থাকলেও এবার ভালো করার ব্যাপারে আশাবাদী প্রোটিয়ারা। বিশ্লেষকরা বলছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বোচ্চ অর্জন সেমিফাইনাল।

অন্য আসরের চেয়ে এবারের আসরে একটু ভিন্নতা রয়েছে। কারণ এবার কোনো গ্রুপ নেই। প্রতিটি দল প্রতিটি দলের মুখোমুখি হবে। অর্থাৎ, সবাই সবার সাথে খেলার সুযোগ পাবে। লিগ পর্বে একটি দল নয়টি করে ম্যাচ খেলবে। তারপর পয়েন্ট টেবিলের সেরা চারটি দল খেলবে সেমিফাইনালে। ১৪ জুলাই লর্ডসে অনুষ্ঠিত হবে শিরোপার লড়াই। এবারের বিশ^কাপে বাগড়া দিতে পারে বৃষ্টি। গত ২৬ মে বৃষ্টির কারণে দুইটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়।

গত আসরে খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছিল বাংলাদেশ সময় সকালে। সেবার কর্মব্যস্ততার কারণে অনেকেই খেলা উপভোগ করতে পারেননি। কিন্তু এবার হাতে গোনা কয়েকটি ম্যাচ ছাড়া বাকি সব শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায়। অর্থাৎ, অফিস বা সারাদিনের কর্মব্যস্ততা সেরে সন্ধ্যায় ভক্তরা খেলা উপভোগ করার সুযোগ পাবে।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ এবার ষষ্ঠবারের মতো অংশ নিচ্ছে। বাংলাদেশ প্রথমবার বিশ্বকাপে অংশ নেয় ১৯৯৯ সালে। তারপর ২০০৩, ২০০৭, ২০১১ ও ২০১৫ সালে বিশ্বকাপে খেলেছে টাইগাররা। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা অর্জন হচ্ছে ২০১৫ সালে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা। কিন্তু এবার আরো সামনের দিকে নজর বাংলাদেশ দলের। ক্রিকেট বিশ্লেষকরা বলছেন, এবারের বিশ্বকাপটি অন্য সব বিশ্বকাপের চেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। ক্রিকেট বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেমিফাইনালে খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। মাশরাফি-সাকিব-মুশফিকরা বলেছেন, বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে খেলা অসম্ভব কিছুই না।

সম্প্রতি ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। সেখানে দলের সিনিয়র-জুনিয়র সব খেলোয়াড়ই দুর্দান্ত পারফরর্ম করেছেন। তাই টাইগারভক্তদের মনে একটু বেশিই আশা। তাছাড়া এ যাবৎকালে বাংলাদেশ দলের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার এটি শেষ বিশ্বকাপ। তাই দলের অন্য খেলোয়াড়রাও চাইবে, ভালো কিছু করে প্রিয় অধিনায়ককে বিদায় জানাতে। বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়ার আগে মিরপুরে এমনটি বলেছিলেন মুশফিকুর রহিম। সকলের প্রত্যাশা মাশরাফির বিদায় যেন হয় বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক হিসাবে। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ২ জুন, প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা।

ইংল্যান্ড স্কোয়াড: ইয়ন মরগ্যান (অধিনায়ক), জ্যাসন রয়, জনি বেয়ারস্টো (উইকেটরক্ষক), জেমস ভিন্স, জো রুট, বেন স্টোকস, জস বাটলার (উইকেটরক্ষক), মঈন আলী, আদিল রশীদ, লিয়াম ডসন, ক্রিস ওয়েকস, লিয়াম প্লানকেট, জফরা আর্চার, টম কুরান, মার্ক উড।

দক্ষিণ আফ্রিকা স্কোয়াড: ফাফ ডু প্লেসিস (অধিনায়ক), এইডেন মার্করাম, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), হাশিম আমলা, রাসি ভ্যান ডের ডুসেন, ডেভিড মিলার, ক্রিস মরিস, আন্দিল ফেলুকায়ো, জেপি ডুমিনি, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, ডেল স্টেইন, কাগিসো রাবাদা, লুঙ্গি এনগিদি, ইমরান তাহির, তাবরাইজ শামসি।

Print Friendly and PDF

———