চট্টগ্রাম, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯ , ৬ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গভীর রাতেও দম ফেলার ফুসরত নেই ব্যবসায়ীদের

গুণগত মান ধরে রাখায় রাজস্থানের ক্রেতারা সন্তুষ্ট

আখতার হোসাইন প্রকাশ: ২০ মে, ২০১৯ ৭:১০ : অপরাহ্ণ

ঈদ যতই এগিয়ে আসছে চট্টগ্রামের মার্কেটগুলোতে বিকিকিনি বাড়ছে। দিনে ক্রেতাদের দখলে চলে যায় শপিংমলগুলো। গভীর রাতেও সেই ভিড় আরো বাড়তে থাকে। ফুটপাত থেকে অভিজাত্য মার্কেগুলোতে একই অবস্থা। ফলে দম ফেলার ফুসরত নেই ব্যবসায়ীদের।

রিয়াজউদ্দিন বাজার প্যারামাউন্ট সিটির রাজস্থানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু কাউছার বলেন, দুপুরে এবং ইফতারের পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ক্রেতারা ঈদের পোশাক কিনতে ভিড় করছে। ক্রেতাদের বাড়তি চাপে হিমশিম খেতে হচ্ছে তাদের। ঈদের আগের দিন পর্যন্ত এভাবে ক্রেতার সংখ্যা অব্যাহত থাকবে বলে আশাবাদ তার।

তিনি আরো বলেন, রাজস্থান ব্যবসাকে সম্প্রসারনের পাশাপাশি পোষাকের গুণগতমান ধরে রাখার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। ফলে আমাদের ক্রেতারা বারবার আমাদের কাছে ফিরে আসছে। ক্রেতাদের সন্তুষ্ট করতে আমরা প্রাণপণ চেষ্টা করি। সীমিত লাভে অধিক বিক্রির লক্ষ্য নিয়ে আমরা অতীতের মতো কোয়ালিটিপূর্ণ পোষাক ক্রেতাদের হাতে তুলে দিতে সক্ষম। তিনি আরো বলেন এ বছর পাঞ্জাবী, পায়জামা, সার্ট, পেন্ট, জুতা, শো, ও বাচ্ছাদের পোষাকের স্পেশাল কালেকশান যথেষ্ট রয়েছে। আশা করি ক্রেতারা নিজেদের পছন্দ মতো কাপড় কিনতে সক্ষম হবে।

এক ছাতার নিচে সব বাজার ‘রাজস্থান’
প্যারামাউন্ট সিটির ২য়তলা রাজস্থানের শোরুমে ক্রেতাদের ভীড়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে। বাচ্ছাদের পোষাকের বিশাল শোরুম দর্শকদের নজর খাড়া কাপড় সহজে পছন্দ করে নিচ্ছে ক্রেতসাধারণ। পাশে রয়েছে জুতা, সু ও সেন্ডেলের বিপুল কালেকশান সমৃদ্ধ শো রুম। ৩য়তলা জুড়ে রয়েছে পাঞ্জাবীর সুবিশাল শো রুম। পাশাপাশি পাঞ্জাবীর এক্স্রসিভ শো রুম ও সার্ট পেন্টের দোকান গুলো। রাজস্থানের পরিচালক নেছার জানান, ক্রেতারা আমাদের কাছে আসে মূলত এক জায়গায় পছন্দের সব কাপড় কিনতে পারে। আর মূল্যও তাদের নাগালের মধ্যে। টেরীবাজার আল ইমাম ম্যানশনের ২য়তলায় পাঞ্জাবী ও সেরওয়ানীর বিশাল শো রুমে প্রতিদিন ক্রেতাদের ভীড় লক্ষনীয়। এছাড়া মিমি সুপার মার্কেটের কেবিএইচ প্লাজায় রয়েছে আরেক বিশাল শো রুম।

চকবাজার গুলজার টাওয়ারের রূপমা ফ্যাশন কালেকশনের প্রোপাইটর মোহাম্মদ জাবেদ বলেন, মাসের শুরুতে ক্রেতা কম থাকলেও এখন ভীড় বাড়ছে। ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে মার্কেটে ক্রেতাদের ভীড়ও বাড়ছে। ঈদের আগ পর্যন্ত ক্রেতাদের ভীড় থাতবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

নগরীর নিউমাকের্ট, রিয়াজউদ্দিন বাজার, কেয়ারী ইলিশিয়াম, ভিআইপি টাওয়ার, টেরিবাজার, মিমি সুপার মার্কেট, আফমি প্লাজা, সেন্ট্রাল প্লাজা, কেবিএইচ প্লাজা, ইউনেস্কো সেন্টার, আমিন সেন্টার, স্যানমার ওসান সিটি, চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্স,আখতারুজ্জামান সেন্টার, জহুর হকার মার্কেট, হাইওয়ে প্লাজাসহ ছোট বড় সব মার্কেটগুলোতে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

টেরী বাজার রাজস্থানের পরিচালক মো: সোহেল বলেন, ঈদে ছেলেদের প্রথম পছন্দ পাঞ্জাবী। ভিবিন্ন ব্রান্ডের পাঞ্জাবীর জন্য উঠতি বয়সের ছেলেদের প্রচুর ভীড়। ইন্ডিয়ান ব্রান্ডিং পাঞ্জাবী শো রুম হিসেবে রাজস্থান ক্রেতদের নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, শাড়ি, থান কাপড়, থ্্ির-পিস, বাচ্চাদের পোশাক, পুরুষের শার্ট, মেয়েদের সারারা, লাসা, কিরণমালা ও পাখি ড্্েরস,ছেলেদের পাঞ্জাবি, জিন্স প্যান্ট ও বিভিন্ন ধরণের কাপড়ের শো রুম, কসমেটিকস, পারফিউম, ইমিটেশন, জুয়েলারি, গার্মেন্টস পণ্য, শিশুদের শার্ট, প্যান্ট, জুতা, লেডিস স্যান্ডেল, বুটিকস, ক্রোকারিজসহ সব ধরণের পণ্যের বিকিকিনি চলছে এসব মার্কেটে।

Print Friendly and PDF

———