চট্টগ্রাম, শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯

কক্সবাজারে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

সিটিজি টাইমস ডেস্ক প্রকাশ: ২০১৯-০৫-১১ ১৬:০১:৫৮

কক্সবাজার শহর ও টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন পুলিশের তিন সদস্য।

শনিবার ভোরে কক্সবাজার শহরের কলাতলী কাটাপাহাড় এলাকা এবং টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের মুন্ডারডেইল এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে। তবে টেকনাফে নিহত মাদক ব্যবসায়ীর পরিচয় জানা গেলেও কক্সবাজার শহরে নিহত ব্যক্তির পরিচয় জানা যায়নি।

টেকনাফের ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, শুক্রবার বিকেলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী দুদু মিয়াকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পরে থানায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

শনিবার ভোরে দুদু মিয়াকে নিয়ে পুলিশ কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের সাবরাং ইউনিয়নের মুন্ডারডেইল এলাকায় ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান চালায়।

ওসি বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পৌঁছানো মাত্রই দুদু মিয়ার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি করে। গোলাগুলি থেমে গেলে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে দুদু মিয়াকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনায় পুলিশের ৩ সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ৫টি দেশীয় বন্দুক, ১৩টি গুলি ও ৪ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

দুদু মিয়া টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের নাজিরপাড়ার মৃত সুলতান আহমদের ছেলে। ঘটনায় আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন-টেকনাফ থানার এসআই সঞ্জিব দত্ত, এসআই মোহাম্মদ নিজাম ও কনস্টেবল মোহাম্মদ ইব্রাহিম। তাদের টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান টেকনাফের ওসি।

এদিকে, শনিবার ভোরে কক্সবাজার শহরের কলাতলীর কাটাপাহাড় এলাকা থেকে পুলিশ গুলিবিদ্ধ অজ্ঞাত এক মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করে। কক্সবাজার সদর থানার ওসি খন্দকার ফরিদ উদ্দিন এ তথ্য জানান।

ওসি ফরিদ বলেন, ‘স্থানীয়দের কাছ থেকে ২ মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। মাদক ব্যবসায়ীরা ঘটনাস্থলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়।

এসময় ঘটনাস্থল থেকে অজ্ঞাত একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’

তিনি জানান, ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ ব্যক্তির পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে সাড়ে ৩০০ ইয়াবা, দেশীয় তৈরী একটি বন্দুক, ২টি গুলি ও ৩টি গুলির খোসা।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

———