চট্টগ্রাম, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

হজযাত্রীদের চূড়ান্ত নিবন্ধনের সময় আরেক দফা বাড়ল

প্রকাশ: ২২ মার্চ, ২০১৯ ১:৪৮ : পূর্বাহ্ণ

আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত চলতি বছরে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে আগ্রহীদের নিবন্ধনের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন এ তথ্য জানিয়েছেন।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে আগ্রহী প্রাক-নিবন্ধিত ব্যক্তিবর্গের নিবন্ধনের জন্য প্রাক-নিবন্ধনের ক্রমিক ২২ হাজার ৭৬৫ হতে পরবর্তীতে

প্রাক-নিবন্ধিত ব্যক্তিবর্গকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত নিবন্ধনের জন্য সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছে।

২০১৯ সালে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীর কোটা এখনও খালি আছে।

তাই ইতোপূর্বে আহ্বানকৃত ২২ হাজার ৭৬৪ ক্রমিকের মধ্যে যারা কোন কারণে নিবন্ধন করতে পারেননি তাদের মধ্যে চলতি বছর হজ পালন করতে আগ্রহী ব্যক্তিদের পরিচালক, হজ অফিস।

ঢাকা বরাবর লিখিত আবেদন prp@hajj.gov.bd; morahajsection@gmail.com ই-মেইলে অবহিতকরণ অথবা ০৯৬০২৬৬৬৭০৭ এ ফোন করে জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

যথাসময়ে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের সুবিধার্থে নিবন্ধনে ইচ্ছুক সব ব্যক্তিকে আগামী ২৭ মার্চের আগে পাসপোর্ট দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

এছাড়া বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের নিবন্ধনের জন্য সময়সীমা ২১ মার্চের পরিবর্তে আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।

তবে যথাসময়ে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনের সুবিধার্থে ২৭ মার্চের আগে পাসপোর্ট দাখিল করতে অনুরোধ করা হয়েছে।

এর আগে ১৭ ফেব্রুয়ারি বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজ নিবন্ধন শুরু হয়। প্রথম দফায় ১০ মার্চ ছিলো চূড়ান্ত নিবন্ধনের শেষ দিন।

কিন্তু নিবন্ধন প্রত্যাশামতো না হওয়ায় ২১ মার্চ এক দফা সময় সময় বাড়ানো হয়। এই সময়ের মধ্যেও নিবন্ধন কাজ শেষ না হওয়ায় আবারও নিবন্ধনের সময় বাড়ানো হলো।

এ সময়ের মধ্যে প্রাক-নিবন্ধনের ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৮১৫ নম্বর ক্রমিক পর্যন্ত হজযাত্রীরা নিবন্ধনের সুযোগ পাবেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সরকারি ব্যবস্থাপনায় এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৯৩১ জন হজযাত্রী নিবন্ধন সম্পন্ন করেছেন।

নিবন্ধন করার সুযোগ পাবেন ৮৮৫ জন। নিবন্ধনের জন্য ১৩৮ জনের ভাউচার পেন্ডিং রয়েছে। ভেরিফিকেশনের জন্য পাসপোর্ট সাবমিট করা হয়েছে মোট ৬ হাজার ৪০০টি।

আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনা এ পর্যন্ত নিবন্ধন করেছেন ৬৩ হাজার ৭৯৮ জন। নিবন্ধনের সুযোগ পাবেন ৫২ হাজার ৯৪৮ জন।

নিবন্ধনের জন্য ভাউচার পেন্ডিং রয়েছে ৭ হাজার ৭৬৯ জনের। আর ভেরিফিকেশনের জন্য পাসপোর্ট সাবমিট করা হয়েছে ৮৭ হাজার ৫৬ জনের।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১০ আগস্ট হজ অনুষ্ঠিত হবে। চলতি বছর পবিত্র হজ পালন করতে বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রী সৌদি আরব যাবেন।

তার মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭ হাজার ১৯৮ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার হজযাত্রী হজে যাবেন।

এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্যাকেজ-১ এ চার লাখ ১৮ হাজার ৫০০ টাকা এবং প্যাকেজ-২ তে তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় সর্বনিম্ন প্যাকেজ নির্ধারণ করা হয়েছে তিন লাখ ৪৫ হাজার ৮০০ টাকা নির্ধারণ করেছে।