চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

সব প্রস্তুত কিন্তু আসেননি খালেদা

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-১০ ১৭:১০:১০ || আপডেট: ২০১৯-০৩-১০ ১৭:১০:১৭

দুর্নীতির মামলায় কারাগারে নেওয়ার পর গত অক্টোবরে বেগম খালেদা জিয়াকে এক মাস বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) রেখে চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল। আজ রবিবার আবার তাকে হাসপাতালে নেওয়ার কথা ছিল। সেই অনুযায়ী কেবিনসহ সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সকাল থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর ছিল তার আসা-যাওয়ার পথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে। কিন্তু সব প্রস্তুতি ভেস্তে যায়। কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, খালেদা জিয়ার অনীহার কারণে নাকি তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে আনা হচ্ছে না।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের দণ্ড নিয়ে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে গত বছরের ৭ অক্টোবর বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়। প্রায় এক মাস চিকিৎসা শেষে আবার তাকে কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

সেখানে ৭৪ বছর বয়সী খালেদার স্বাস্থ্যের ‘চরম অবনতি’ হয়েছে দাবি করে উদ্বেগ জানিয়ে আসছেন বিএনপির নেতারা। তাদের অভিযোগ, কারাগারে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা হচ্ছে না।

গত মঙ্গলবার বিএনপির চেয়ারপারসনের সুচিকিৎসার দাবি নিয়ে দলের একটি প্রতিনিধিদল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের বলেন, মেডিকেল বোর্ড গত ২৪ ফেব্রুয়ারি কারাগারে গিয়ে খালেদাকে দেখে এসে কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষার কথা বলেছে। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়াকে ‘শিগগির’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেওয়া হবে।

আজ খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে আনার কথা ছিল। দুপুরের দিকে হাসপাতালের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল হারুন সাংবাদিকদের বলেন, ‘কারা কর্তৃপক্ষ আমাদের জানিয়েছেন যে, আজকে খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে আনা হচ্ছে না। আমরা প্রস্তুত ছিলাম, মেডিক্যাল বোর্ড প্রস্তুত ছিল, কেবিনও প্রস্তুত ছিল ‘

পরিচালক আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড সেখানে গিয়েছিলেন। এর আগে তার যে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল তার ফলোআপ হিসেবে আজকে আসার কথা ছিল তার।’

বিএনপির নেত্রীর হাসপাতালে না আসার বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানেন না বিএনপিপন্থি চিকিৎসকদের সংগঠন ড্যাবের আহ্বায়ক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার। তিনি বলেন, ‘আজকে না আসার কারণ আমার জানা নেই। এর আগে তাকে সর্বশেষ যখন বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়েছিল, তখন চিকিৎসা শেষ না করে জোর করে তাকে কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে।’

দেশের চিকিৎসা ও চিকিৎসকের ওপর বেগম খালেদা জিয়ার পূর্ণ আস্থা আছে দাবি করে ড্যাব নেতা বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। হুইলচেয়ারে বসার যে পাদানি থাকে, সেখানেও ঠিকমতো বসতে পারেন না তিনি। তার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের চিকিৎসক এফ এম সিদ্দিকী কারাগারে গিয়েছিলেন। সেখানে স্পষ্ট করে বলেছেন, বেসরকারি ইউনাইটেড হাসপাতালে খালেদা জিয়ার যে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আছে, তাদের অধীনে চিকিৎসা নিতে।’

এ দেশে অনেকেই প্যারোলে বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন, এখনও যাচ্ছেন- এ কথা উল্লেখ করে ডোনার বলেন, ‘এই দাবি এত বড় কিছু না বলে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি। দেশের অনেকে প্যারোলে মুক্তি নিয়ে বিদেশে চিকিৎসা নিতে গিয়েছেন। তিনি (খালেদা) প্যারোলে মুক্তি নিতে যাবেন কি না সেটা তার ব্যাপার। তিনি তো দেশেই চিকিৎসা পাচ্ছেন না, প্যারোলে মুক্তি তো পরের কথা। খালেদা জিয়া বিদেশে যাওয়া তো দূরের কথা দেশেই নিজের ইচ্ছায় চিকিৎসা পাচ্ছেন না।’