চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

যুদ্ধ প্রস্তুতি: মে নাগাদ ভারতের বাঙ্কার নির্মাণ শেষ!

প্রকাশ: ২০১৯-০৩-১০ ১১:১৪:৩৫ || আপডেট: ২০১৯-০৩-১০ ১১:১৪:৩৮

পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত উত্তেজনা নতুন কিছু নয়। কাশ্মির ইস্যুতে এ দুদেশের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলেই বহু হতাহতের ঘটনা ঘটে। পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবে উভয় দেশই সীমান্তে সর্বেোচ্চ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে থাকে। এরই অংশ হিসেব গত বছরের শুরুতেই জম্মু-কাশ্মির সীমান্তে ১৪ হাজার ৪৬০টি বাঙ্কার নির্মাণের ঘোষণা দেয় ভারত।

এসব বাঙ্কারের মধ্যে সেনাদের জন্য ১৩ হাজার ২৯টি এবং জনসাধারণের জন্য ১৪৩১টি। বাঙ্কার নির্মাণে বরাদ্দ দেয়া হয় ৪১৫ দশমিক ৭৩ কোটি রুপি। এগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে সীমান্ত জেলা জম্মু, সামবা, কাথুয়া, পুনক এবং রাজৌরিতে।

যুদ্ধ বাধলে একক বাঙ্কারগুলোতে আটজন সেনার নিরাপদে আশ্রয় নিতে পারবেন। আর কমিউনিটি বাঙ্কারগুলোতে অন্তত ৪০ জন সাধারণ মানুষের আশ্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জনায়, ২০১৮ সালের প্রথম পাঁচ মাসে পাকিস্তান এক হাজার ২৫২ বার যুদ্ধ-বিরতি লঙ্ঘন করে। “এসব কারণে সীমান্তে বাঙ্কার নির্মাণ করতে বাধ্য হচ্ছি,” বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ।

এদিকে গত ১০ মাসে পরিকল্পনার চার ভাগের এক ভাগ বাঙ্কার নির্মাণ শেষ করেছে ভারত। জম্মুর বিভাগীয় কমিশনার সঞ্জিব ভারমা বলেন, “এখন প্রায় অর্ধেক বাঙ্কারের নির্মাণ কাজ চলছে। আশা করছি, আগামী দুই মাসে সব বাঙ্কার নির্মাণ শেষ হবে।”

প্রসঙ্গত, গত মাসের মাঝামাঝি জম্মু-কাশ্মিরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় চল্লিশের বেশি ভারতীয় সেনা নিহত হন। হামলার দায় স্বীকার করে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জঈশ-ই-মোহাম্মদ। এরই জের ধরে পাকিস্তানের ভিতরে অনুপ্রবেশ করে হামলা চালায় ভারত। বেড়ে যায় উত্তেজনা। যার রেশ এখনো চলছে।

ভারতের বিরধীদলগুলো বলছে, ক্ষমতাসীন বিজেপি জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে এমন হামলা ঘটিয়ে ফায়দা লুটতে চায়। আড়াল করতে চায়, পাঁচবছরের দুর্নীতি ও ব্যর্থতা।