চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৪ মার্চ ২০১৯

যুদ্ধ চাই না, শান্তি চাই: কাদের

প্রকাশ: ২০১৯-০২-২৮ ১৭:৪৪:৫৩ || আপডেট: ২০১৯-০২-২৮ ২১:১৫:৩৭

পাক-ভারত সীমান্তে উত্তেজনা ও অস্থিরতা প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমরা যুদ্ধ চাই না, শান্তি চাই। উপমহাদশের ক্রসবর্ডার টেরোরিজম বা সীমান্ত সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরকার জিরো টলারেন্স ঘোষণা দিয়েছে। সীমান্তে যে সব সন্ত্রাসী গ্রুপগুলো রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে নির্মানাধীন দ্বিতীয় মেঘনা সেতু ও দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতুর নির্মান কাজের অগ্রগতিক পরিদর্শনে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি না করতে বিএনপি নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনার সরকার অমানবিক নয়। সরকার বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে সব ধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে। তবে বিএনপি বেগম জিয়ার অসুস্থতার চেয়ে রাজনীতিকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। তার অসুস্থতা নিয়ে এখন তারা রাজনীতি করার পথ বেছে নিয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করোপেরশনের নির্বাচনে বিরোধীদল না থাকায় প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ না হলেও শান্তিপূর্ণভাবেই হচ্ছে বলে জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। বিরোধীদল অংশগ্রহণ করলে এই নির্বাচনটি আরো প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হতো।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জানান, আগামী ঈদুল ফিতরের আগেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ৭শ’ ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মানাধীন দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতু, দ্বিতীয় মেঘনা সেতু ও দ্বিতীয় গোমতী সেতুটি উদ্বোধন করা হবে।

তিনি জানান, আগামী ১০ মার্চ কাঁচপুরের সেতটিু প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা যাচ্ছে। মেঘনা সেতু ও গোমতী সেতু পর্যাক্রমে এপ্রিল ও মে মাসের মধ্যেই কাজ সমাপ্ত করে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করা হবে।

এই তিনটি সেতু চালু হলে ঢাকা-চট্ট্রগাম মহাসড়কে ঈদের সময়ে কোনো ধরণের যানজট সৃষ্টি হবে না এবং সাধারণ মানুষ নির্বিঘ্নে ঈদযাত্রা করতে পারবে। কাউকে কোনো ধরণের ভোগান্তিতে পড়তে হবে না বলে আশা প্রকাশ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

সেতু পরিদর্শকালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ প্রশাসন এবং সড়ক-জনপথ ও সেতু বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তা।