চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯

চট্টগ্রামে ঝড়ে লণ্ডভণ্ড গাছপালা

প্রকাশ: ২০১৯-০২-২৫ ২১:৩০:৩৭ || আপডেট: ২০১৯-০২-২৫ ২২:১৫:১৪

চট্টগ্রামে ঝড়ে লণ্ডভণ্ড গাছপালা। সেই সঙ্গে বজ্রপাতসহ শিলাবৃষ্টি। সোমবার সকালে ঝড়সহ বৃষ্টিপাতের কারণে অন্ধকার হয়ে যায় নগরী।

আগের দুদিনের হালকা গরম কাটিয়ে বসন্ত মৌসুমের এটাই প্রথম বৃষ্টি।

বঙ্গোপসাগরে স্বাভাবিক লঘুচাপের কারণে সারা দেশের মতো চট্টগ্রাম ও আশপাশের জেলাগুলোতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত ও কোথাও কোথাও ভারী বর্ষণ হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নগরীর সার্কিট হাউস, শিশুপার্ক, বহদ্দারহাট সোনালী ব্যাংক সড়কসহ বিভিন্ন জায়গায় গাছপালা ভেঙে পড়েছে। কোথায় কোথাও শিকড়সহ উপড়ে পড়েছে সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা গাছগুলো। ঝড়ের কারণে সীতাকুণ্ডের কুমিরা-গুপ্তছড়া ঘাটে নৌ-চলাচল বন্ধ রয়েছে।

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস জানায়, বঙ্গোপসাগরে স্বাভাবিক লঘুচাপ ও পশ্চিমা লঘুচাপের সাথে পূবালী বায়ুর মিলনের ফলে সারা দেশের মতো চট্টগ্রামেও দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এই বৃষ্টি আরও দুদিন অব্যাহত থাকতে পারে।

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ উজ্জ্বল কান্তি পাল জানান, আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে বঙ্গোপসাগরের উত্তর-পূর্ব দিক থেকে সৃষ্ট মৌসুমী বায়ু দমকা হাওয়া আকারে চট্টগ্রামের ওপর দিয়ে বয়ে গেছে।

চট্টগ্রামে সোমবার সকাল ৯টা ১০ মিনিট থেকে ৯টা ১৫ মিনিটের মধ্যে সর্বোচ্চ ৭০ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া রেকর্ড করা হয়েছে। সকাল ৯টা পর্যন্ত মাত্র ৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

জেলার রাঙ্গুনিয়া থেকে অগ্নিনির্বাপক কেন্দ্রের ইনচার্জ লিটন হাওলাদার জানান, চন্দ্র্রঘোনা কাটাখালী এলাকায় চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের ওপর একটি মাঝারি আকারের গাছ ভেঙে পড়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়েগেছে। পরে অগ্নিনির্বাপন কেন্দ্রের সদস্যরা পৌঁছে সেসব গাছ কেটে সরিয়ে যান চলাচল সহজ করে দিয়েছে।

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া থেকে স্থানীয় সংবাদদাতা আরফাত হোসেন বলেন, সকালে কালবৈশাখীর ঝড়ে উপজেলা বিভিন্ন এলাকায় গাছপালা ভেঙে পড়েছে। গাছের ডালপালা পড়ে কাঁচা ঘরবাড়ি ভেঙে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে বেশ কিছু এলাকা থেকে। তবে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

সকালের এ বাতাস ও বৃষ্টির সঙ্গে আকাশ ঘন অন্ধকারে ছেয়ে গেছে। বৃষ্টির মধ্যে পথচারী, অফিস-স্কুলগামী শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকেরা বিপাকে পড়েন।