চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পে অস্ত্রধারীদের গুলিতে পল্লী চিকিৎসক নিহত

প্রকাশ: ২০১৯-০২-২৩ ১৭:৩৩:৪৯ || আপডেট: ২০১৯-০২-২৩ ১৭:৩৩:৫৬

আমান উল্লাহ কবির

কক্সবাজারের টেকনাফের নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের কুখ্যাত ডাকাত নিহতের জেরধরে স্বশস্ত্র অনুসারীদের গুলিতে এক পল্লী নিহত ও এক রোহিঙ্গা গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
জানা যায়,গত শুক্রবার সন্ধ্যায় টেকনাফের নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের একদল স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা গ্রুপ শালবাগান এলাকায় ডিসপেনসারীতে কর্মরত অবস্থায় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নয়াপাড়ার বাসিন্দা মোহাম্মদ হোছনের পুত্র ডাঃ হামিদ (৪১) কে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে পাহাড়ের পাদদেশে নিয়ে গুলি করে ফেলে দিয়ে চলে যায়। অপরদিকে একই সময়ে সি-ব্লকের মোঃ সালামের পুত্র হাসান আলী (৩২) প্রকাশ কমিটি হাসানকে লক্ষ্য করে দূবৃর্ত্তরা কয়েক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। এতে হাসান আলীর শরীরে ২টি বুলেট বিদ্ধ হয়। ঘটনাস্থল হতে মূমুর্ষ হাসানকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতাল হয়ে চিকিৎসার জন্য উন্নত হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এদিকে ক্যাম্পে নিয়োজিত নিয়োজিত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও স্বজনেরা রাত ৯টারপর পল্লী চিকিৎসক গুলিবিদ্ধ পল্লী হামিদের মৃতদেহ উদ্ধার করেন। রাতেই লাশ উদ্ধার করে পুলিশ পোস্ট মর্টেমের জন্য কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করেন।

এই ব্যাপারে ডাঃ হামিদের বোন তাসনিম ও স্ত্রী ফাতেমা জানান,রোহিঙ্গা দূবৃর্ত্তরা পল্লী চিকিৎসক (ডাঃ) হামিদকে অপহরণ করে পাহাড়ে নিয়ে গুলি করে মৃত্যু নিশ্চিত করার পর ফেলে দিয়ে যায়। এখন ছোট ছোট ২ ছেলে ও ২ মেয়ে নিয়ে আমরা কোথায় যাব বলে কাঁদতে থাকেন।

এই ব্যাপারে নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্প পুলিশ পরিদর্শক আব্দুস সালাম জানান, গুলিবিদ্ধ হাসানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার প্রেরণের পর রাতেই পল্লী চিকিৎসক হামিদের গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। লাশ উদ্ধার পোস্টমর্টেমের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ব্যাপারে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি এজাহার দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গুলিবিদ্ধ কমিটি হাসান চমেকে মুমূর্ষাবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।