চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯

আনোয়ারায় সরকারী নীতিমালা উপেক্ষা করে কোচিং বাণিজ্য, সংশ্লিষ্ট প্রশাসন নিরব

প্রকাশ: ২০১৯-০২-২৩ ১৭:৩০:২৮ || আপডেট: ২০১৯-০২-২৩ ১৭:৩০:৩৬

এস.এম. সালাহ উদ্দীন

আনোয়ারায় প্রাইমারী থেকে শুরু করে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক এমনকি উচ্চ শিক্ষা ব্যবস্থার ছাত্র-ছাত্রীরা সরকারী, বেসরকারী স্কুল ও কলেজের চাইতে কোচিং এর উপর দিন দিন নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে।

এ কারণে অভিভাবকদের সন্তানের লেখা পড়ার জন্য গুণতে হচ্ছে বিপুল অর্থ।

স্বল্প আয়ের অভিভাবক তো বটেই, মধ্যম ও নিম্ম আয়ের অভিভাবকেরা তাদের সন্তানদের লেখাপড়া খরচ কুলিয়ে উঠতে পারছেন না। বিশেষ করে যাদের একাধিক সন্তান লেখাপড়ার সাথে যুক্ত তাদের অবস্থা শোচনীয়।

বাড়ীভাড়া ও সংসার খরচের পাশাপাশি তাদের আয়ের একটি বিশেষ অংশ চলে যাচ্ছে সন্তানদের লেখাপড়ার পেছনে।

স্কুলের খরচ ছাড়াও কোচিং এর জন্য বিশাল বাজেট প্রতি মাসেই অভিভাবকে যোগার করতে হয়। প্রতি বিষয়ে আলাদা আলাদা কোচিং প্রাইভেট সহ নানা খাতে অঢেল টাকা খরচ করতে কার্পন্য করছেন না। সহজ সরল অভিভাবকদের ছেলে-মেয়েদেরকে বাংলা এবং ধর্ম বিষয়েও আলাদা প্রাইভেটের নামে অনেক টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে কোচিং সেন্টার গুলো।

গত ২ ফেব্রুয়ারী শুরু হওয়া মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষা চালাকালীন সময়ে কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারী করেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়।

কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারের নীতিমালাকে বৈধ ঘোষণা করে রায়দেন হাইকোর্ট। যাতে বলা হয়, সরকারী ও বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকেরা কোন অবস্থাতে জড়াতে পারবেন না কোচিং এ।

কিন্তু সরকারের নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে এস.এস.সি ও সমমানের পরীক্ষা চলাকালে কোচিং চালিয়ে যাচ্ছে আনোয়ারার কোচিং সেন্টার গুলি।

সারা দেশে সরকারের নির্দেশ অমান্যকারী কোচিং সেন্টারের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে বিভিন্ন কোচিং সেন্টারকে সিলগালা ও জরিমানা করা হলেও আনোয়ারায় কোন অভিযান পরিচালনা না হওয়ায় ব্যাঙের ছাতার মত কোচিং সেন্টার গুলো পরীক্ষা চলাকালীন সময়েও অব্যহত রেখেছে। আনোয়ারায় চোখে পড়ার মতো কোচিং সেন্টার গুলো হলো: mcc কোচিং সেন্টার, ncc কোচিং সেন্টার, cpp কোচিং সেন্টার, এডভান্স কোচিং সেন্টার, ড্যাফোডিল কোচিং সেন্টার, অর্নিবান কোচিং সেন্টার, আলফা কোচিং সেন্টার, এস.এম. আউলিয়া কোচিং সেন্টার, র্ভাচুটাইল কোচিং সেন্টার ছাড়া ও আরো অনেক কোচিং সেন্টার রয়েছে।

আনোয়ারার সচেতন মহল ও অভিভাবকেরা মনে করেন শিক্ষকদের কোচিং বন্ধের সরকারী সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে অবিলম্বে সরকারের নির্দেশ অমান্য করে আনোয়ারার কোচিং সেন্টার গুলোর বিরুদ্ধে প্রশাসনের প্রতি অভিযান চালানোর জোর দাবী জানান।