চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আধিপত্য বিস্তারের জের : রাঙামাটিতে একদিনে ৩ যুবকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশ: ২০১৯-০২-০৪ ১৯:২৮:৩৮ || আপডেট: ২০১৯-০২-০৪ ১৯:২৮:৪৬

আলমগীর মানিক

পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে পৃথক ঘটনায় তিন যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে জেলা সদরের বালুখালীস্থ কাপ্তাই হ্রদ ও কাপ্তাই উপজেলাধীন চন্দ্রঘোনাস্থ কারিগর পাড়া এলাকা থেকে এই তিন যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটি পুলিশের দুই কর্মকর্তা।

চন্দ্রঘোনার থানা পুলিশ জানিয়েছে, আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলাধীন কারিগর পাড়ায় দুই যুবককে গুলি করে হত্যা করেছে আঞ্চলিকদলীয় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা। নিহত যুবকদ্বয় হলো মংশিনু মারমা (২৫) ও জাহিদুল ইসলাম জাহিদ (২৬)। চন্দ্রঘোনা থানার অফিসার ইনচার্জ আশরাফ উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, একদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে সোমবার দুপুরে কারিগর পাড়া বাজার এলাকায় দুইজনকে হত্যা করেছে। আমরা বিকেলে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছি। প্রাথমিক সুরতহাল শেষে আমরা নিহতদের লাশ রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্যে প্রেরণ করবো। তিনি জানান, আমরা এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত হতে পারিনি কে বা কাহারা এই ঘটনার সাথে জড়িত।

এদিকে, নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে মারমা যুবক মংশিনু আগে ইউপিডিএফ এর রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলো। সম্প্রতি সে সংস্কারপন্থী জেএসএস (এমএন)লারমা গ্র“পে যোগ দিয়েছিলো। এ কারনে তাকে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করে। স্থানীয় সূত্রটি জানায়, নিহত অপর যুবক জাহিদ ও মংশিনু উভয়েই ভালো বন্ধু ছিলো। তারা উভয়েই একসাথে বাজারে গেলে আকশ্মিক হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। সুত্রটি জানায় জাহিদ সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠনের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলো। এদিকে বেলা দুইটার সময় ঘটনাটি সংঘঠিত হওয়ার পর থেকেই নিহতদের লাশ রাস্তার উপর পড়ে থাকলেও ভয় আর আতঙ্কে স্থানীয়রা তাদের লাশ উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি।

এদিকে, সোমবার রাঙামাটিস্থ সদর উপজেলাধীন কাপ্তাই হ্রদের বালুখালী ইউনিয়নের মধ্যমপাড়া এলাকায় পানিতে উক্ত যুবকের মৃতদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা কোতয়ালী থানা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই লিমন বোস।র তিনি জানান, আনুমানিক ২৫ বছর বয়সী উক্ত যুবকে দেহের অর্ধেকাংশই পচে-গলে গেছে। তাই তাকে ভালোভাবে শনাক্ত করা যাচ্ছেনা। লাশটি উদ্ধারের পর রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্যে। পরবর্তীতে ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে জানিয়ে এসআই লিমন বোস বলেছেন এই ঘটনায় আপাতত ইউডি মামলা দায়ের করা হবে রাঙামাটির কোতয়ালী থানায়। এদিকে পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, উদ্ধারকৃত অর্ধগলিত লাশটির ঘাড়ের পেছনে আঘাতের মতো কালো চিহ্ন রয়েছে।