চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

অবশেষে চলেই গেলেন চবি ছাত্রী নুসরাত

প্রকাশ: ২০১৯-০২-০২ ১৫:৪৭:৫৪ || আপডেট: ২০১৯-০২-০৩ ১০:৫৩:২৪

অবশেষে না ফেরা দেশে চলে গেলেন নুসরাত । টানা ১২ দিন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রেখেও বাঁচানো গেল না তাকে।

শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন চবির এই শিক্ষার্থী।

আজ বিকেলে আসরের নামাজের পর চট্টগ্রামের হালিশহর বি ব্লক ঈদগাহ মাঠে নুসরাতের জানাযা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

নুসরাত চৌধুরী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ইংরেজি বিভাগের ১২-১৩ সেশনের শিক্ষার্থী। ফোর্থ ইয়ার ফাইনাল চলছিল। দিয়েও ফেলেছিলেন চারটি পরীক্ষা। কিন্তু কে জানত, আর পরীক্ষার হলে বসা হবে না নুসরাতের!

গেল ২১ জানুয়ারি সকাল ১০টায় চট্টগ্রামের ভাটিয়ারিতে বিশ্ববিদ্যালয় আসার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় মাথায় গুরুতর আঘাত পান তিনি। ১২ চিকিৎসার পর আজ মারা যান নুসরাত।

জানা যায়, ঘটনার দিন তাৎক্ষণিক অপারেশন করাতে না পারায় নুসরাতের মস্তিষ্কে ভেতরের অংশে রক্ত জমাট ভেদে ব্রেন অনেকবেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এমনকি ব্রেন ড্যামেজ হওয়ার সম্ভাবনাও ছিল। প্রাথমিক চিকিৎসার পর পাঁচ থেকে সাড়ে পাঁচঘণ্টা সময় নিয়ে ডাক্তাররা অপারেশন করেন। তখন থেকেই নুসরাত কোমায় এবং আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।

উল্লেখ্য, নুসরাত চৌধুরীর বাড়ি চট্টগ্রামের মিরাসরাই। বাবা মৃত কবির হোসেন চৌধুরী এবং মা রেহেনা আকতার। স্বামী ফখরুল ইসলাম। একটি চার বছরের কন্যা সন্তানও আছে তার।

নুসরাতের সহপাঠীরা জানান, নুসরাতের অনার্স ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা চলছিলো। চারটা পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর পঞ্চম পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য ২১ তারিখ নুসরাত রওয়ানা দিলে আসার পথেই মারাত্মক রোড এক্সিডেন্টের শিকার হয় নুসরাত। নুসরাতের পরিবার এবং সহপাঠীরা তাঁর আত্মার মাগফেরাতের জন্য সকলের নিকট দোয়া চেয়েছেন।