চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

স্থায়ী বইমেলাপ্রাঙ্গণ পেতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম

প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৯ ১২:৩০:৪৫ || আপডেট: ২০১৯-০১-১৯ ১২:৩০:৫৪

মহানগরী এবার একটি স্থায়ী বইমেলাপ্রাঙ্গণ পেতে যাচ্ছে। প্রতিবছর ১০ ফেব্রুয়ারি ওই একই স্থানেই বইমেলাটি আয়োজন করা হবে। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরেই চট্টগ্রামের পাঠক, প্রকাশকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার লোকজনের দাবি ছিল, চট্টগ্রামে নির্দিষ্ট সময়ে এবং নির্দিষ্ট স্থানে একটি বইমেলা হোক। চট্টগ্রামবাসীর সেই চাওয়া অবশেষে পূরণ হচ্ছে।

আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে চট্টগ্রামে একটিই বইমেলা হওয়ার কথা রয়েছে। ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ মেলা চলবে চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেশিয়াম মাঠে। বইমেলার আয়োজন করছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। তবে মেলা বাস্তবায়নের উদ্যোগটি নেয়া হয়েছে সম্মিলিতভাবে। অর্থাৎ চট্টগ্রামের বিভিন্ন প্রকাশনাসংস্থা, সাহিত্যিক, লেখক, বুদ্ধিজীবী এবং শিল্প-সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে জড়িতরাই এ সম্মিলিতভাবে এ মেলা বাস্তবায়ন করবেন। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ উদ্যোগটি বাস্তবায়ন সম্ভব হচ্ছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের আন্তরিকতার কারণে।

চট্টগ্রামে যে বইমেলাগুলো হয়ে আসছিল, তা পুরোপুরি মানসম্পন্ন ছিল না। ফলে পাঠক-ক্রেতাদের মধ্যে ক্ষোভ ছিল। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, ‘এবার মানসম্পন্ন মেলা করার জন্য তিন-চার মাস আগে থেকেই প্রস্তুতি ছিল। গত অক্টোবর মাসে প্রকাশকদের সঙ্গে প্রথম বসেছিলাম। সর্বশেষ গত ১৭ জানুয়ারিও বসেছি। আশা করছি, এবার একটা মানসম্পন্ন মেলা হবে। আমরা এবার ভেন্যুও পরিবর্তন করেছি। স্টেডিয়ামের সামনের মাঠে হবে। স্টলগুলোও হবে দৃষ্টিনন্দন। ঢাকার আদলে হবে। অন্যবার প্রথম সারির প্রকাশনাসংস্থাগুলো অংশ নিতো না। এবার আশা করছি, তারাও আসবে। তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে, তারা মৌখিকভাবে আশ্বস্ত করেছেন।’

মেয়র বলেন, ‘আগামী ২০ জানুয়ারি স্টল বরাদ্দের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। এবারের মেলায় প্রতিদিন বিষয়ভিত্তিক আলোচনা হবে। জাতীয় পর্যায়ে পরিচিত এমন সাহিত্যিকদের আমন্ত্রণ জানানো হবে। তারা নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর নির্ধারিত সময়ে আলোচনা করবেন।

প্রতিবছর যে পৃথক বইমেলাগুলো হতো এবার সেগুলোর আয়োজন না করা নিয়ে কোন আশ্বাস আছে কি না জানতে চাইলে মেয়র বলেন, ‘আমি তো সেটাই বলেছি, যেন একটি মেলায় হয় সবার অংশগ্রহণে। এখন কেউ করতে চাইলে তো জোর করতে পারবো না। আমি তো বলতে পারবো না, তুমি করতেই পারবে না। আমি তাদেরকে অনুরোধ করছি। এ মুহূর্ত পর্যন্ত তারা নিশ্চিত করেছেন, সবাই মিলে একটাই করবে। কেউ চাইলে অন্য মাসে করতে পারে।’

চট্টগ্রামের সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদের সভাপতি এবং বইমেলা পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মহিউদ্দিন শাহ আলম নিপু বলেন, আমাদের একটাই চাওয়া ছিল, সম্মিলিতভাবে একটি মেলা। এবার থেকে সেটি শুরু হচ্ছে। সবাই নীতিগতভাবে একমত হয়েছেন, নির্দিষ্ট সময়ে এ মেলা হবে প্রতিবছর। আমাদের টার্গেট আছে কমপক্ষে ঢাকার ২৫ টি প্রকাশনা সংস্থাকে মেলায় অংশগ্রহণ করানো। এ বিষয়ে আমাদের কথা হয়েছে। অনেকে আশ্বস্ত করেছেন।