চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

চট্টগ্রামে ১২ চোরাই সিএনজি অটোরিক্সা উদ্ধার, আটক ৫

প্রকাশ: ২০১৯-০১-১৫ ১৬:৪৮:৫৩ || আপডেট: ২০১৯-০১-১৫ ১৬:৫৯:৪১

চট্টগ্রামে চোরাই অটোরিকশা ও নিবন্ধনের ভুয়া কাগজপত্রসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ; উদ্ধার করা হয়েছে ১২টি চোরাই অটোরিকশা। আটক কৃতরা হলেন- মোঃ গোলাম আকবর (৫০), মোঃ আনোয়ার হোসেন (৩৮), সজীব শিকদার (৪৮), মোঃ সিহাবুর রহমান প্রঃ মিঠু (৪২), মোঃ কামাল হোসেন(৪৩)।

নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। চক্রটি জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া নম্বর প্লেইট ব্যবহার করে রাস্তায় অটোরিকশা নামাতেন বলে পুলিশের দাবি।

চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা (উত্তর) বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে এসব চো রাই সিএনজি অটোরিক্সা, ভুয়া কাগজপত্র ও বিভিন্ন সীল মোহর সহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা জানিয়েছে-জব্দকৃত সিএনজি অটোরিক্সা গুলোতে ব্যবহৃত রেজিঃ নম্বর সমূহ প্রকৃতপক্ষে বিআরটিএ হতে সংগ্রহ করা হয়নি। গ্রেফতারকৃত আসামীরা সংঘবদ্ধ একটি চক্র। তাদের আরো ৩ জনের নাম পরিচয় আমরা পেয়েছি। চক্রটি চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থান হতে চোরাই ও নম্বর বিহীন সিএনজি অটোরিক্সা গুলো সংগ্রহ করে পরবর্তীতে মোঃ সিহাবুর রহমান প্রকাশ মিঠু (৩৫) এর মাধ্যমে বিআরটিএ কর্তৃক পূর্বেই বাতিল ঘোষনাকৃত রেজিঃ নম্বর সংগ্রহ করে জাল জালিয়াতির মাধ্যমে রেজিঃ নম্বর গুলোর সাথে মিল রেখে সিএনজি অটোরিক্সার জাল ডকুমেন্ট প্রস্তুতসহ সিএনজি অটোরিক্সা গুলোর ইঞ্জিন ও চেসিস নম্বর পরিবর্তন (ডকুমেন্ট অনুযায়ী ভুয়া নম্বর প্রতিস্থাপন) করে নিজেদের হেফাজতে রেখে ক্রয়- বিক্রয়সহ ভাড়ায় পরিচালনা করে আসছিল দীর্ঘদিন ধরে।

এ ঘটনায় পলাতকরা হলেন- মোঃ আনোয়ার হোসেন (৪০), মোঃ মিজানুর রহমান (৪৫), মোঃ আফজাল হোসেন (৩৮)। পলাতক আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে খুলশী থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় ডিবির এ কর্মকর্তা।