চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯

টেকনাফের গুলিবিদ্ধ লাশ চট্টগ্রাম কলেজের ছাত্র সাজ্জাদের

প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৪ ২১:৫১:২৫ || আপডেট: ২০১৯-০১-০৪ ২১:৫১:৩৫

কক্সবাজারের টেকনাফ সমুদ্র সৈকত থেকে উদ্ধার হওয়া গুলিবিদ্ধ ব্যক্তির লাশের পরিচয় মিলেছে। তার নাম সাজ্জাদ হোসেন ইমরান (২৪)। তিনি চট্টগ্রামের লোহাগাড়া পশ্চিম আমিরাবাদের মাস্টারপাড়া গ্রামের মোহাম্মদ কালামের ছেলে। সে চট্টগ্রাম কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

শুক্রবার (৪ জানুয়ারি) সকালে টেকনাফ-কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ সড়ক সংলগ্ন বাহারছড়া ইউনিয়নের নোয়াখালীপাড়া সৈকত এলাকা থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করেছিল পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, ‘মেরিনড্রাইভ সড়ক সংলগ্ন সৈকত এলাকা থেকে ওই ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। তার শরীরে গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, ইয়াবার চালান পাচারের সময় দুই পক্ষের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের গুলিতে ওই ব্যক্তি নিহত হয়ে থাকতে পারেন। রাতে পরিবারের মাধ্যমে মৃতদেহের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (৩ জানুয়ারি) কক্সবাজার বেড়াতে যাবে বলে বাড়ি থেকে বের হয় ইমরান। ৪ জানুয়ারি সকালে টেকনাফের বাহারছড়ার সাগর উপকূলীয় নোয়াখালী পাড়া থেকে তার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরিবারের দাবি, তাকে কেউ হত্যা করে এখানে ফেলে রেখে গেছে। এ বিষয়ে তারা মামলা করবেন বলেও জানিয়েছেন।

টেকনাফের বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান, ‘কোন সন্ত্রাসী গ্রুপ তাকে মেরে হয়তো এখানে ফেলে গেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে।’

এর আগে, শুক্রবার সকালে বাহারছড়ার সাগর উপকুলে ইমরানের গুলিবিদ্ধ লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে। তাৎক্ষণিকভাবে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করে। কিন্তু বিকেলে তার বড় ভাই ইরফান তাকে শনাক্ত করে।