চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

কেউ যদি সরেও যায়, নির্বাচন সরবে না: কাদের

প্রকাশ: ২০১৮-১২-০৫ ১৬:১৮:১৪ || আপডেট: ২০১৮-১২-০৫ ১৮:৫৮:১৬

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন হবে কিনা, এ নিয়ে কারও সন্দেহ নেই। কোনও মিডিয়াতে এ ধরনের সংশয় নিয়ে খবর প্রকাশ হয়নি। ইনশাআল্লাহ নির্বাচন হবে। তারা সরে গেলেও হবে। নির্বাচন কারও জন্য আটকে থাকবে না। কেউ যদি সরেও যায়, নির্বাচন সরবে না। নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

‘সরকারের নীল নকশা বাস্তবায়ন করছে নির্বাচন’ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের এমন অভিযোগের জবাবে কাদের বলেন, তারা নির্বাচন বানচালের নীল নকশা লন্ডন থেকে করছে। আমাদের কোনও নীল নকশা নেই। আমাদের নীল নকশা অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচনের।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ৯ তারিখ মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। এরপর সঙ্গে সঙ্গে বহিষ্কার করা হবে।

‘এই সরকার মানুষ খেয়ে ফেলছে’ নাগরিক ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা মাহমুদুর রহমান মান্নার এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কাদের বলেন, সরকার কী ভূমিকা পালন করছে, সেটা জনগণ ৩০ তারিখের ভোটে বুঝিয়ে দেবে।

মান্নাকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, মান্না সাহেব অপেক্ষা করুন। ৩০ তারিখে বাংলার মানুষের রায়ে ভোট বিপ্লব হবে, তখন বুঝতে পারবেন আপনার ধারণা কত অবাস্তব।

আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি প্রসঙ্গে কাদের বলেন, ১০ বছরে নামলো না, ১০ তারিখের পর আন্দোলন করবে। মনে হয় হেরে গিয়ে আন্দোলন করবে, এই তো? দেখি না আন্দোলন করতে কে আসে। মানুষ না থাকলে তো আন্দোলন হয় না। মানুষের সাড়া নেই বলে এই ১০ বছরে তারা কোনও আন্দোলন করতে পারেনি।

‘নির্বাচনের সুস্থ পরিবেশ নেই’ বিএনপির এমন অভিযোগের জবাবে কাদের বলেন, অসুস্থ পরিবেশ কোথায় সৃষ্টি হয়েছে এই নগরীতে? এই মুহূর্তে এই ঢাকা শহরে কোথায় পরিবেশ অসুস্থ? যেটুকু অসুস্থ হয়েছে— সেটা পল্টনে তারা করেছে। আমি নিশ্চিত করে বলছি, আমাদের তরফ থেকে নির্বাচনের পরিবেশ বিঘ্নিত হবে না। আমরা কোনও বিশৃঙ্খলা করবো না। এ ব্যাপারে আমাদের নেত্রী নেতাকর্মীদেরকে সতর্ক করে দিয়েছেন। কিন্তু তারা যদি বিশৃঙ্খলা-নাশকতা করতে চায়, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের প্রতিরোধ করতে হবে। এবার বিজয়ের উৎসবের মতো ভোট হবে, এজন্য তাদের মনটা একটু খারাপ।