চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

অপপ্রচারের দাবী, প্রফেসর ড. আবু রেজা নদভী এমপির বক্তব্য

প্রকাশ: ২০১৮-১২-০৩ ১৬:৩৮:২৬ || আপডেট: ২০১৮-১২-০৩ ২০:১০:৩২

গত ১ ডিসেম্বর ২০১৮ইং মাদার্শা বাবু নগরে সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত কর্মীয় সভায় চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনের সংসদ সদস্য, আগামী সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী প্রদত্ত বক্তব্য এডিটিং এর মাধ্যমে বিভিন্ন অনলাইন সংবাদপত্রসহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল করে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এক বিবৃতিতে প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপি বলেন, গত ১ ডিসেম্বর ২০১৮ইং সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত পৃথক পৃথক কর্মী সভা ছিল অত্যন্ত সফল।

উক্ত দুই কর্মী সমাবেশে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র নেতৃবৃন্দসহ দুই উপজেলা আওয়ামীলীগের সকল স্থলের নেতৃবৃন্দের স্বত:স্ফূর্ত উপস্থিতি ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখে সাতকানিয়া লোহাগাড়ার জনগণকে দীর্ঘদিন ধরে জিম্মি ও উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্থকারী জামাত শিবিরের মাঝে আতংকের সৃষ্টি হয়। ফলে তারা অতীতের ন্যায় ষড়যন্ত্রে নেমে পড়ে।

তারই অংশ হিসেবে সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত কর্মী সভায় আমার প্রদত্ত বক্তব্য এডিটিং এর মাধ্যমে খন্ডিতভাবে বিভিন্ন অনলাইন পত্র-পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করে। সেদিন আমি স্পষ্ট ভাষায় নেতা কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেছি, বিগত সময়ে যেভাবে দলের নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে সরকারি উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনা করেছি ভবিষ্যতেও এমপি নির্বাচিত হলে সরকারি এবং আমার প্রতিষ্ঠিত আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশনের উন্নয়ন প্রকল্প আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন সমূহের নেতৃবৃন্দের সাথে সমন্বয় করে বাস্তবায়ন করবো।

তিনি জামাত শিবিরের উপরোক্ত অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সর্বস্তরের জনসাধারণের প্রতি আহ্বাবন জানান এবং এসব তথ্য সন্ত্রাসের সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে তথ্য প্রযুক্তির আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানান।