চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

চট্টগ্রামে যারা মনোনয়নপত্র জমা দিলেন

প্রকাশ: ২০১৮-১১-২৯ ১৫:১৮:৫২ || আপডেট: ২০১৮-১১-২৯ ১৫:৪৯:৩১

চট্টগ্রামের ১৬টি সংসদীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন মোট ২৩৫ জন দলীয় ও স্বতন্ত্র প্রার্থী। তবে বুধবার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন পর্যন্ত জমা দিয়েছেন ১৭৮ জন। অর্থাৎ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেও ৫৭ জন ব্যক্তি মনোনয়নপত্র জমা দেননি।

এদিকে, ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপির দলীয় সিদ্ধান্তের আলোকে চট্টগ্রামের সবকটি আসনে দুই থেকে তিনজন বা এরও বেশি মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের সিদ্ধান্তের বাইরে চট্টগ্রাম-১০ (ডবলমুরিং-হালিশহর) ও চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) সংসদীয় আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছে জামায়াত। আর জেলার ফটিকছড়ি ও সীতাকুণ্ড ছাড়া বাকি সব আসনেই আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

তবে এই দুই জোটের বাইরে জাতীয় পাটি, ইসলামিক ফ্রন্ট, তরিকত ফেডারেশন, ইসলামী আন্দোলনন বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দল ও সতন্ত্র প্রার্থীরাও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। সব মিলিয়ে ১৬টি সংসদীয় আসনে ১৭৮ জন মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বপ্রাপ্ত চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বপ্রাপ্ত চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক।

মনোনয়নপত্র জমাদানকারী প্রার্থীদের পূর্ণ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে রাত ১১টার পর। যাচাই-বাছাই ও প্রত্যাহারের পর পাওয়া যাবে ভোটের মাঠের প্রার্থীদের তালিকা।

চট্টগ্রাম-১ (মিরসরাই) আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, বিএনপি থেকে মনিরুল ইসলাম, নুরুল আমিন, কামাল উদ্দীন আহমেদসহ ১১ জন।

চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন নৌকার হয়ে তরিকত ফেডারেশনের নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি, বিএনপি থেকে ডা. খুরশিদ জামিল চৌধুরী, সাবেক সেনা অফিসার কর্নেল আজিমউল্লাহ বাহার ও মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন এবং স্বতন্ত্র হিসেবে আওয়ামী লীগ নেতা এ টি এম পেয়ারুল ইসলামসহ ১৩ জন।

চট্টগ্রাম-৩ (সন্দ্বীপ) আসন থেকে আওয়ামী লীগের মাহফুজুর রহমান মিতা, বিএনপির মোস্তফা কামাল পাশাসহ ৮ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-৪ (সীতাকুণ্ড-কাট্টলী) আসন থেকে আওয়ামী লীগের দিদারুল আলম, বিএনপির আসলাম চৌধুরী, স্বতন্ত্র হিসেবে আওয়ামী লীগের বাকের ভূঁইয়াসহ ১১ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী) সংসদীয় আসন থেকে জাতীয় পার্টির আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, বিএনপির মীর মো. নাসির উদ্দিন ও শাকিলা ফারজানা এবং কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিমসহ ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-৬ (রাউজান) আসন থেকে আওয়ামী লীগের এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী, বিএনপির সামীর কাদের চৌধুরীসহ ৪ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-৭ (রাঙ্গুনিয়া) সংসদীয় আসন থেকে আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ হাছান মাহমুদ, বিএনপির গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরীসহ ১২ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) আসনে মহাজোটর পক্ষে নৌকা মার্কায় জাসদ একাংশের মঈনউদ্দিন খান বাদল, বিএনপির এম মোরশেদ খান ও আবু সুফিয়ান, সিপিবির সেহাবউদ্দিন সাইফুসহ ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালী-বাকলিয়া) আসনে আওয়ামী লীগের মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, বিএনপির ডা. শাহাদাৎ হোসেন, সিপিবির মৃণাল চৌধুরীসহ ১২ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১০ (ডবলমুরিং-হালিশহর) আসন থেকে আওয়ামী লীগের ডা. আফছারুল আমিন, বিএনপির আবদুল্লাহ আল নোমান, জামায়াতের শাহজাহান চৌধুরীসহ ১৩ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর-পতেঙ্গা) আসনে আওয়ামী লীগের এম এ লতিফ, বিএনপির আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ ১৪ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনে আওয়ামী লীগের শামসুল হক চৌধুরী, বিএনপির গাজী শাহজাহান জুয়েল ও এনামুল হক এনামসহ ১২ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা) আসনে আওয়ামী লীগের সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, বিএনপির সরওয়ার জামাল নিজামসহ ১০ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১৪ (চন্দনাইশ-সাতকানিয়া (আংশিক) আসনে আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম চৌধুরী, এলডিপির অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল অলি আহমদ, সিপিবির আবদুল নবীসহ ১৩ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনে আওয়ামী লীগের ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী, বিএনপির শেখ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, জামায়াতের আ ন ম শামসুল ইসলাম ও জাফর সাদেকসহ ৮ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে আওয়ামী লীগের মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, বিএনপির জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, জামায়াতের অধ্যক্ষ মো. জহিরুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীসহ ১০ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম মহানগর ও আশপাশের আসনের প্রার্থীরা প্রায় সবাই রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বপ্রাপ্ত চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আবদুল মান্নানের কাছে গিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

একইভাবে জেলার ১০টি আসনের অনেক প্রার্থীও রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বপ্রাপ্ত চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেনের কাছে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। তাছাড়া নিজ নিজ সংসদীয় আসনের উপজেলায় মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন অনেকেই।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী বছরের শেষ দিন ৩০ ডিসেম্বর সারাদেশে একযোগে ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা রয়েছে।