চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮

ঐক্যফ্রন্ট-বিএনপি নেতারা গৃহযুদ্ধের হুমকি দিচ্ছে: কাদের

প্রকাশ: ২০১৮-১১-২২ ১২:০৬:১৭ || আপডেট: ২০১৮-১১-২২ ১৮:৫৫:৪১

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপি নেতারা বিভিন্ন জায়গায় আক্রমণাত্মক মন্তব্য গৃহযুদ্ধের হুমকি দিচ্ছে। তারা বলছেন, নির্বাচনের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে ৩শ’ থেকে ৫শ’ নেতা-কর্মী অবস্থান করবে।

বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর র‌্যাডিসন ব্লু হোটেলে অনুষ্ঠিত এক সেমিনার শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরাও যদি একইভাবে আমাদের নেতা-কর্মী কেন্দ্রে অবস্থান নিতে বলি, তাহলে কি গৃহযুদ্ধ হবে? বিএনপি নেতারা অবিরাম তারা ‘অ্যাগ্রেসিভ’ (আক্রমণাত্নক) মুডে কথা-বার্তা বলছেন, অবিরাম তারা আক্রমণাত্নক ভাষায় কথা বলছেন। তারা গৃহযুদ্ধের হুমকি দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট কেন্দ্র কেন্দ্রে ৩শ’ থেকে ৫শ’ লোক থাকার অর্থ কি? এখন আমরাও যদি ৩শ’ ৫ শ’ লোক কেন্দ্রে কেন্দ্রে রাখার ব্যবস্থা করি, তাহলে কি হবে? ভোট হবে? না গৃহযুদ্ধ হবে? ভোট হবে না সংঘাত হবে, ভোট হবে না ভায়োলেন্স হবে? আমি প্রশ্ন রাখতে চাই। অবিরামভাবে তারা অ্যাগ্রেসিভ ভাষায়, আক্রমণাত্নক ভাষায় কথা বলছে।

নির্বাচন, গণতন্ত্র এসব তাদের ভাষায় নেই উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আজকে দেশের জনগণ একটা শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চায়। তারা অবাধ সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ নির্বাচন চায়। বিএনপি নেতারা আক্রমণাত্নক ভাষা ব্যবহার করে নির্বাচনের সুন্দর পরিবেশটাকে নষ্ট করছেন। কেন তারা এমন করছেন?

নির্বাচন কমিশন পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করছে বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন পক্ষপাতদুষ্ট আচারণ করছে কিনা সেটা ইসিকে জিজ্ঞেস করুন। তবে আমার দৃষ্টিতে পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ আমি পাচ্ছি না। বরং আমরা কিছু অভিযোগ করেছি সে বিষয়ে তারা বলছে আরপিও কাভার করে না আমরা সেখানে আপত্তি করি নাই। কারণ আমাদের অনেক কিছুই ধৈর্য ধরতে হবে।

সেতুমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের আচারণে টলারেন্সের পরিচয় দেব, ধর্য্যের পরিচয় দেব। কিন্তু বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট যেভাবে অ্যাগ্রেসিভ টোনে কথা বলছে, সেটা কিন্তু সংঘাতের উস্কানি দিচ্ছে। যেটা এ সুন্দর পরিবেশকে, নির্বাচনের পরিবেশকে বিঘ্নিত করবে, নষ্ট করবে। তারা কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাহারাদার নিয়োগ করার নামে গৃহযুদ্ধের হুমকি দিচ্ছে।