চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন খালেদা জিয়া: ফখরুল

প্রকাশ: ২০১৮-১১-১৯ ১৬:২৮:১৯ || আপডেট: ২০১৮-১১-১৯ ১৬:২৮:১৯

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া প্রার্থী হতে পারবেন বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সোমবার (১৯ নভেম্বর) দুপুরে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের নেতারা কে কী বললেন, তার ওপর খুব বেশি কিছু নির্ভর করে না। তিনি এখন পর্যন্ত নির্বাচন করার যোগ্য আছেন। খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন এখনও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে পারেনি। তফসিল ঘোষণার পরেও বিএনপির নেতা কর্মীদের গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে। সরকার একটি নেতিবাচক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। এভাবে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি হয় না।

গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, গতকালও (রোববার) আমরা খবর পেয়েছি আমাদের সাক্ষাৎকারে অংশ নেওয়ার জন্য যশোরের ভাইস প্রেসিডেন্ট তিনি যে হোটেলে ছিলেন (আইয়ুব সাহেব সম্ভবত) তাকে তুলে নেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত তার কোনও খবর আমরা এখনও পাইনি। বিষয়টিকে নিশ্চিত করার জন্য আমি আপনাদেরকে আমার সাংবাদিক বন্ধুদেরকে অনুরোধ করব।

তিনি আরও বলেন, আমরা প্রায়ই দেখছি গ্রেফতার করা হচ্ছে এবং কারাগারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সবচেয়ে ক্ষোভের বিষয় আমাদের প্রার্থী, যে পটেনশিয়াল প্রার্থী যারা সম্ভাব্য ভালো প্রার্থী তাদেরকে মামলাগুলো দিয়ে তাদেরকে জামিন না দিয়ে তাদের জামিনের শুনানিকে বিলম্বিত করা হচ্ছে এবং সেটা নির্বাচনের পরে দেওয়া হচ্ছে। এটা একটা নতুন কৌশল, তারা আদলতকে ব্যবহার করে, নিম্ন আদলতকে ব্যবহার করছে নির্বাচনের উপরে চরমভাবে প্রভাব বিস্তার করছে।

ফখরুল বলেন, আবারও আমরা বলছি, যে অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য অবিলম্বে সমস্ত গ্রেফতার বন্ধ করা, রাজবন্দীদের মুক্তি দেওয়া, বিশেষ করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়া জরুরি বলে আমরা মনে করি।

এদিকে, গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দ্বিতীয় দিনের মতো ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নিচ্ছে বিএনপি। সকাল ১০টা থেকে এ সাক্ষাৎকার শুরু হয়েছে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাক্ষৎকার গ্রহণ করছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

এছাড়া মনোনয়ন বোর্ডে রয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

সোমবার সকাল ১০টায় বরিশাল-১ আসনের প্রার্থীদের সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে দ্বিতীয় দিনের সাক্ষাৎকার গ্রহণ শুরু হয়। বরিশাল বিভাগের সাক্ষাৎকার গ্রহণ শেষে বিকালে খুলনা বিভাগের প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার শুরু হবে। চলবে রাত পর্যন্ত।

মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) সকাল ৯টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম বিভাগ এবং বেলা আড়াইটা থেকে কুমিল্লা ও সিলেট বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া ২১ নভেম্বর বুধবার সকাল ৯টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ময়মনসিংহ ও ফরিদপুর বিভাগ এবং বেলা আড়াইটা থেকে শেষ না হওয়া পর্যন্ত ঢাকা বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে।