চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

‘৬ মাসের মধ্যে চট্টগ্রাম হয়ে ভারতীয় জাহাজ যাবে ত্রিপুরায়’

প্রকাশ: ২০১৮-১১-১৪ ১৪:৫৪:০২ || আপডেট: ২০১৮-১১-১৪ ১৭:৪৩:১১

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেছেন, আগামী ৬ মাসের মধ্যে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ছোট জাহাজ মালামাল নিয়ে রাজ্যের সোনামুড়ায় যাবে। এ জন্য ভারতীয় অংশের গোমতী নদীতে ড্রেজিং কাজ সম্পন্ন করতে ছয় মাস লাগবে।

খনন কাজ শেষ হলে বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বন্দরের সঙ্গে ত্রিপুরার সোনামুড়াকে যুক্ত করা হবে। সোনামুড়া থেকে মেঘনা নদী দিয়ে আশুগঞ্জ বন্দরের দূরত্ব প্রায় ৭০ কিলোমিটার। অথচ বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের হলুদিয়া বন্দর দিয়ে ত্রিপুরার দূরত্ব ২২ শ কিলোমিটার।

গতকাল মঙ্গলবার রাজ্যের রাজধানী আগরতলায় এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিপ্লব কুমার এসব কথা বলেন।

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বিপ্লব কুমার বলেন, বাংলাদেশ হয়ে মালামাল আনা-নেওয়া শুরু হলে আগামী তিন বছরের মধ্যে ত্রিপুরা স্মার্ট সিটি হয়ে উঠবে, সেটা কেউ ঠেকাতে পারবে না।

তিনি বলেন, খুব শিগগিরই ভারতীয় অংশে গোমতী নদীতে ড্রেজিং বা খনন কাজ শুরু করবে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। অক্টোবরে আমি দিল্লিতে সড়ক পরিবহন ও শিপিং মিনিস্টার নিতিন গাদকারির সঙ্গে দেখাও করেছি। এরপর ওই এলাকা সম্প্রতি সফর করেছেন নৌচলাচল বিষয়ক সচিব। তিনি আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছেন যে, এই কাজ সম্পন্ন হবে ৬ মাসের মধ্যে। নতুন এই জলপথের কাজ সম্পন্ন হলে উৎপাদিত পণ্য সরাসরি চলে যাবে সোনামুড়া সাব ডিভিশনাল শহরে।

ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে আগরতলা থেকে বাংলাদেশের আখাউড়া পর্যন্ত ১৫ কিলোমিটার রেলপথের কাজ শেষ হবে। এর ফলে ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো বাংলাদেশ হয়ে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে সংযুক্ত হবে।

চট্টগ্রাম থেকে সরাসরি সোনামুড়ায় ভারতীয় পণ্য পরিবহন শুরু হলে ত্রিপুরা উত্তর-পূর্ব ভারতের অন্যতম সরবরাহ কেন্দ্রে পরিণত হবে বলেও দাবি করেন বিপ্লব।