চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

চট্টগ্রামে মনোনয়ন ফরম বিক্রয়ে আ.লীগের রেকর্ড

প্রকাশ: ২০১৮-১১-১৩ ১০:৫১:৫৬ || আপডেট: ২০১৮-১১-১৩ ১৪:৪৩:০৭

চট্টগ্রামের ১৬টি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে রেকর্ড পরিমাণ মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন দলের নেতারা।

গত ৩ দিনে ২২৫ জন আগ্রহী প্রার্থী দলীয় মনোনয়নপত্র নিয়েছেন। কোনো কোনো আসনে সম্ভাব্য প্রার্থী সংখ্যা ২৫ ছাড়িয়ে গেছে। এর মধ্যে অন্তত ৪টি আসন মহাজোটের শরীকদের ছেড়ে দিতে হবে। এ অবস্থায় মনোনয়ন বঞ্চিতরা মূল প্রার্থীকে বেকায়দায় ফেলতে পারে বলে শঙ্কা বিশ্লেষকদের।

চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগ উত্তর, দক্ষিণ এবং মহানগর নামে তিনটি সাংগঠনিক কাঠামোতে বিভক্ত। এর মধ্যে উত্তর চট্টগ্রামের ৮টি আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পত্র কিনেছেন ১শ জন আগ্রহী প্রার্থী।

এর মধ্যে ফটিকছড়ি আসন থেকে মনোনয়ন পত্র কিনেছেন সর্বোচ্চ ২৫ জন। অথচ এ আসনটি গত সংসদ নির্বাচনের সময় মহাজোটের শরীক ত্বরীকত ফেডারেশনকে ছেড়ে দেয়া হয়। একইভাবে জাতীয় পার্টির প্রার্থীর কাছে ছেড়ে দিতে হয় হাটাহাজারী আসন। আর দক্ষিণ চট্টগ্রামের ৫টি আসনে মনোনয়পত্র কিনেছেন ৬৬জন। এখানকার বোয়ালখালী আসন ছাড়তে হয়েছিলো জাসদের কাছে।

চট্টগ্রাম উত্তর চট্টগ্রাম দক্ষিণ: আসন প্রার্থী সংখ্যা আসন প্রার্থী সংখ্যা

চট্টগ্রাম-১ মীরসরাই ৯ জন চট্টগ্রাম-৮ বোয়ালখালী ১৭ জন

চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি ২৫ জন চট্টগ্রাম -১২ পটিয়া ৯ জন

চট্টগ্রাম- ৩ সন্দ্বীপ ১৪ জন চট্টগ্রাম-১৩ আনোয়ারা ৪ জন

চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুন্ড ১৭ জন চট্টগ্রাম-১৪ চন্দনাইশ ২৩ জন

চট্টগ্রাম- ৫ হাটহাজারী ১০ জন চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া ১৮ জন

চট্টগ্রাম –৬ রাউজান ৪ জন চট্টগ্রাম-১৬ বাঁশখালী ১২ জন

চট্টগ্রাম -৭ রাঙ্গুনীয়া ৪ জন

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, ‘এক আসনে একাধিক প্রার্থী আছেন। এতে কোনো সমস্যা হবে না বলে আমরা মনে করি। প্রধানমন্ত্রী যাকে মনোনয়ন করবে সবাই তার পক্ষে হয়ে কাজ করবো।’

নগরীর তিনটি আসন থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছেন ৫৯ জন। এর মধ্যে কোতোয়ালী আসন থেকে সবচে বেশি ২৬ জন মনোনয়ন কিনেছেন। আর চমক হিসাবে নগরীর ডবলমুরিং আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপত্র কিনেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক মেয়র এম মঞ্জুর আলম।

নির্বাচন বিশ্লেষকরা মনে করছেন, এধরনের গণহারে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার কারণে নির্বাচনের সময় প্রার্থীর জন্য নেতিবাচক হতে পারে।

আসনপ্রার্থী সংখ্যা আসনপ্রার্থী সংখ্যা:

চট্টগ্রাম-৯ কোতোয়ালী ২৬ জন চট্টগ্রাম-১০ ডবলমুরিং ১৬ জন

চট্টগ্রাম-১১ বন্দর ১৭ জন

চট্টগ্রাম জেলা টি আই বি-সনাক সভাপতি অ্যাডভোকেট আকতার কবীর চৌধুরী বলেন, ‘এটা কোনো শুভ লক্ষণ না। কেউ কেউ ফাইদা লুটতে এ ধরনের কাজ করছে। এটাতে দলের নিয়ন্ত্রন করা উচিত ছিলো।’

তবে মনোনয়ন নিয়ে কোনো রকম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আশঙ্গা নেই বলে মনে করেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন।

আওয়ামী লীগ নেতারা জানিয়েছেন, দলের সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বুধ কিংবা বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের ১৬টি সংসদীয় আসনে মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারীদের সাথে কথা বলে মনোনয়ন চূড়ান্ত করবেন।