চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮

অসাংবিধানিক দাবি মানা হবে না: সংলাপ শেষে কাদের

প্রকাশ: ২০১৮-১১-০৭ ১৪:৪১:২২ || আপডেট: ২০১৮-১১-০৭ ১৯:৩২:৩৫

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সংলাপে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যেসব দাবি করেছে তার বেশিরভাগ মানতে সম্মত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে তাদের কিছু দাবি সংবিধানপরিপন্থি। সেগুলো মেনে নেওয়া সম্ভব হবে না। মানলে ওয়ান ইলেভেনের মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

বুধবার (৭ নভেম্বর) গণভবনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের সঙ্গে সংলাপ শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

সংসদ ভেঙে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ১০ সদস্যের উপদেষ্টা পরিষদের প্রস্তাব নাকচ করা হয়েছে বলে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, এটা সংসদ ভেঙে পরবর্তী ৯০ দিনের প্রক্রিয়া। কিন্তু আমরা সংবিধানের বাইরে যাব না।

সূত্রে জানা যায়, সংলাপের শুরুতে ঐক্যফ্রন্ট এই নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব দিলেও আওয়ামী লীগ তা নাকচ করে দিয়েছে। দলটি জবাবে বলেছে, এটা সংবিধান সম্মত নয়, এতে সাংবিধানিকশূন্যতা সৃষ্টি হবে। আর এ সুযোগে তৃতীয় পক্ষ ঢুকে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

সেনাবাহিনী মোতায়েনের ব্যাপারে ওবায়দুল কাদের বলেন, বলেন, সেনাবাহিনী মোতায়েন আমাদের দেশে হয় না। পৃথিবীর কোনও গণতান্ত্রিক দেশে এটা নেই। সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকবে তবে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সংলাপে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট যে দাবি করেছে, তা মূলত নির্বাচন পেছানোর বাহানা। সংবিধান অনুসারে যখন নির্বাচন হওয়ার কথা, ঐক্যফ্রন্টের নেতারা সেটির পরিবর্তে সংসদ ভেঙে দিয়ে পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের দাবি করেছেন। এর মাধ্যমে তারা নির্বাচন পেছানোর বাহানা করছেন।

তিনি বলেন, আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। তাদের অনেক দাবি আমাদের মেনে নিতে কোনও আপত্তি নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের আশ্বস্ত করেছেন অবাধ, সুষ্ঠু, অংশগ্রহণ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনে যা করণীয় তা সবই করা হবে।

তিনি বলেন, মন্ত্রীরা নির্বাচনের প্রচারণায় কোনও ধরনের সুযোগ-সুবিধা নেবেন না।

গণভবনে বুধবার বেলা ১১টার কিছু পর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে দ্বিতীয় দফায় সংলাপ শুরু হয়। এ সংলাপ চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। প্রথমেই ড. কামালের হোসেনের নেতৃত্বাধীন আগত ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের গণভবনে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে এর আগে গেলো ১ নভেম্বর প্রথম দফার সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।