চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

এ দেশেই থাকতে হবে, ইসিকে ঐক্যফ্রন্টের সতর্কতা

প্রকাশ: ২০১৮-১১-০৫ ১৯:৪০:৩৯ || আপডেট: ২০১৮-১১-০৫ ২৩:০৪:০২

নির্বাচনের পরও এ দেশেই থাকতে হবে বলে নির্বাচন কমিশনকে সতর্ক করেছেন ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যে সংলাপ চলছে তার ফলাফল না আসা পর্যন্ত তফসিল ঘোষণা না করতে কমিশনের কাছে দাবি জানিয়ে এই সতর্কতা দেয়া হয়েছে তাদেরকে। খবর ঢাকাটাইমস

সোমবার বিকালে নির্বাচন কমিশনে যান ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। বৈঠক শেষে সন্ধ্যা সোয়া ছয়টার দিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে থাকা জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

ফ্রন্টের পক্ষ থেকে কমিশনে যান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, জেএসডির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ, নঈম জাহাঙ্গীর প্রমুখ।

অন্যদিকে কমিশনের পক্ষে ছিলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, কবিতা খানম, রফিকুল ইসলাম ও শাহাদত হোসেন চৌধুরী।

আগামী ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত আছে নির্বাচন কমিশনের। রবিবারের বৈঠকে এই বিষয়চি চূড়ান্ত হয়। জানানো হয়, তফসিলে ভোটের জন্য দেড় মাসের মতো সময় দেয়া হবে। এই হিসাবে ভোট হতে পারে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে।

তার আগের দিন ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে এখনই তফসিল ঘোষণা না করার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দেয়া হয় নির্বাচন কমিশনে। আর এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা শেষে ফ্রন্টের মুখপাত্র রব সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘নির্বাচনের পরও নির্বাচন কমিশনারদেরকে এই দেশে বাস করতে হবে। পরিবার-পরিজন নিয়ে থাকতে হবে। সেই বিষয়টিও তাদের ভেবে দেখতে বলা হয়েছে।’

‘আমরা ৭ নভেম্বর সংলাপের পর ফলাফল না আসা পর্যন্ত তফসিল ঘোষণা না করতে বলেছি। তারা (ইসি) বিবেচনায় নিয়েছেন বলে তারা জানিয়েছেন।’

গত ১ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ ও তার জোটের শরিকদের সঙ্গে সংলাপে বসে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। তবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, সংসদ ভেঙে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন, ইভিএম ব্যবহার না করার দাবিতে সাড়া দেননি প্রধানমন্ত্রী।

এই অবস্থায় আগামীকাল বুধবার সীমিত পরিসরে আবার সংলাপে বসতে যাচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট। আর এই সংলাপ শেষে বৃহস্পতিবার বা শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে সংলাপের ফলাফল জানাতে পারেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনায় ভোটে ইভিএম ব্যবহার না করার দাবিও জানানো হয়। এ বিষয়ে রব সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘আমরা বলেছি, দেশের জনগণ চায় না, রাজনৈতিক দলগুলো চায় না। তারপরও কেন ইভিএম ব্যবহারের জন্য তোড়জোড় হচ্ছে? তারা (ইসি) এই বিষয়টিও বিবেচনায় নিয়েছে।’

ভোটগ্রহণের আগেই সাদা কাগজে প্রিজাইডিং কর্মকর্তা কারও সই নেবেন না বলেও নির্বাচন কমিশনের কাছ থেকে আশ্বাস আদায় করেছে ঐক্যফ্রন্ট।