চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

কক্সবাজারে অস্ত্রসহ ১০ জলদস্যু গ্রেফতার

প্রকাশ: ২০১৮-১১-০৫ ১৫:৫৩:৫০ || আপডেট: ২০১৮-১১-০৫ ১৫:৫৩:৫০

কক্সবাজারের বঙ্গোপসাগর উপকূলে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও গুলিসহ ১০ জলদস্যুকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। সোমবার ভোরে বঙ্গোপসাগরের উপকূল থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জলদস্যুরা তিনটি বাহিনীর সদস্য বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

এ সময় জলদস্যুদের কাছ থেকে ছয়টি অস্ত্র ও ৩৭ রাউন্ড গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়। সেইসঙ্গে জলদস্যুদের কবল থেকে অপহৃত তিন মাঝিমাল্লাকে উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মহেশখালীর কালারমারছড়া এলাকার মো. ইউনুছের ছেলে আব্দুল গফুর (২২), নূরুল আলমের ছেলে মো. জুয়েল (২৬), ছব্বির আহমদের ছেলে নুরুল হক (৩২), আবুল হোসেনের ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৮), জাফর আহমদের ছেলে মোহাম্মদ তারেক (৩০), জালাল আহমদের ছেলে আবুল হোসেন (২৫), গোলাম হোসেনের ছেলে ছৈয়দুল ইসলাম (৩৫), কুতুবদিয়া উপজেলার কবির আহমদের ছেলে মো. করিম (২৫), ফজল করিমের ছেলে তাহের মিয়া (২৫) ও বান্দরবানের মোহাম্মদ আলীর ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৪৫)।

র‌্যাব জানায়, রোববার রাত ১টার দিকে গভীর সাগরে দুটি মাছ ধরার ট্রলার ডাকাতি করে জলদস্যুরা। ডাকাতি শেষে জলদস্যুরা ওই দুই ট্রলারের তিনজন মাঝিমাল্লাকে অপহরণ করে। পরে জেলেদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে র‌্যাব সাগরে অভিযান চালায়। একপর্যায়ে অপহৃত তিন মাঝিমাল্লাকে উদ্ধার করে র‌্যাব। এ সময় ১০ জলদস্যুকে গ্রেফতার করা হয়। পরে জলদস্যুদের কাছ থেকে ছয়টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ৩৭ রাউন্ড গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

অপহরণের শিকার মাঝিমাল্লারা হলেন- মহেশখালী ঘটিভাঙা এলাকার আব্দুল মজিদ, রামুর নুরুল আলম ও সদরের চৌফলদন্ডী এলাকার বাচা রাখাইন।

সোমবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত জলদস্যু ও অপহৃত মাঝিমাল্লাদের কক্সবাজার শহরের ৬নং ঘাটে নিয়ে আসে র‌্যাব। সেখান থেকে গাড়িতে করে র‌্যাবের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় তাদের।

র‌্যাব ৭-এর কক্সবাজার ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মো. মেহেদী হাসান বলেন, জেলেদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে অভিযান চালানো হয়। এ সময় অপহৃত তিন মাঝিমাল্লাকে উদ্ধার করা হয়। অভিযানে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আরও একটি ট্রলারে করে বেশ কয়েকজন জলদস্যু পালিয়ে যায়। তবে ১০ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় র্যাব।