চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮

সমৃদ্ধ দেশ গঠনে তারুণ্যের উদ্ভাবনী চিন্তার বিকাশ ঘটাতে হবে, ড. হোসেন জিল্লুর

প্রকাশ: ২০১৮-১১-০৪ ২১:১৬:৫৫ || আপডেট: ২০১৮-১১-০৪ ২১:১৬:৫৫

শিক্ষার্থীদের মেধা ও উদ্ভাবনী শক্তির বিকাশের লক্ষ্যে চট্টগ্রামের মুরাদপুরস্ত ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজী কর্তৃক আয়োজিত ‘স্কিলস কম্পিটিশন ২০১৮’ অদ্য ৩ নভেম্বর ইনস্টিটিউট চত্ত্বরে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে অধ্যক্ষ আহসান হাবিব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

দিনব্যাপি ‘স্কিলস কম্পিটিশন ২০১৮’ উদ্ভোধন করেন বিজিসি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও রসায়নবিদ প্রফেসর ড. সরোজ কান্তি সিংহ হাজারী। প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও অর্থনীতিবিদ ড. হোসেন জিল্লুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ টেলিভিশন, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জি.এম নিতাই কুমার ভট্টাচার্য, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম, অধ্যাপক ড. একেএম মঈনুল হক মিয়াজী, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, আই.ই.বি চট্টগ্রাম অঞ্চলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার এম এ রশিদ, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রীজের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, শিক্ষাবিদ শামসুদ্দিন শিশির, ব্যবসায়ী মাহবুব রানা, ফুলকলির জি.এম এম.এ সবুর, এডভোকেট মাসুদ আলম বাবলু, ডা. আর.কে রুবেল, এম ইব্রাহিম কবির, মো. আলমগীর, নেছার আহমেদ খান, নোমান উল্লাহ বাহার, বোরহান উদ্দীন গিফারী, কামরুজ্জামান ফরহাদ, সৈয়দ ইয়াসির সামিত প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন , বাংলাদেশের সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রা এগিয়ে নিতে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার আরো প্রসার ঘটানো প্রয়োজন। বিপুল তারুন্যকে জনসম্পদে রুপান্তর করতে কর্মমূখী শিক্ষায় সর্বাাধিক সম্পৃক্ত করতে হবে। উদ্ভাবনী প্রতিভার ফলপ্রসু বাস্তবায়নে নতুন প্রজন্মকে সমৃদ্ধ দেশ গঠনে এগিয়ে আসতে হবে।

প্রফেসর ড. সরোজ সিংহ হাজারী বলেন, শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমনস্ক নাগরিক হিসাবে গড়ে তুলতে এন.আই.টি এর প্রয়াস প্রসংশনীয়। বর্তমান প্রজন্মের বহুমাত্রিক উদ্ভাবনী চিন্তা আমাদেরকে মুগ্ধ করেছে।

শিক্ষার্থীরা চমৎকার চমৎকার আইডিয়া দিয়ে ১০২ টি প্রজেক্ট প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়। তার মধ্যে প্রথম স্থান দখল করে “রোবোটিক থার্ড হ্যান্ড”, ২য় স্থান দখল করে “সুপার ডিটেক্টিভ ডিভাইস” এবং তৃতীয় স্থান দখল করে “বাঙ্গালীর স্মৃতি”। সমাপনী পর্বে সকল অংশগ্রহনকারীকে সনদ বিতরণ করা হয়।

এছাড়া অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, ছাত্র/ছাত্রী, অবিভাবক, স্থানীয় প্রশাসন, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, শিল্প-কারখানার মালিক, প্রতিনিধি ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্য উপস্থিত ছিলেন।- প্রেস বিজ্ঞপ্তি