চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮

৪ বছর পর গম চুরির দায়ে বরখাস্ত চট্টগ্রামের সাবেক খাদ্য নিয়ন্ত্রক

প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৯ ২০:৩৪:৫৭ || আপডেট: ২০১৮-১০-৩০ ১১:১৬:০৯

দক্ষিণ কোরিয়া থেকে আমদানি করা ৩ হাজার ৩৫৩ মেট্টিক টন গম চুরির ঘটনার চার বছর পর চট্টগ্রামের সাবেক জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এবং অতিরিক্ত দায়িত্ব চলাচল ও সংরক্ষণ মো. জহিরুল ইসলামকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

জাতীয় সংসদের খাদ্য বিষয়ক স্থায়ী কমিটির ৩ নং সাব-কমিটির সুপারিশে গত ৭ অক্টোবর তাকে বরখাস্ত করা হয়।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সংস্থা প্রশাসন শাখার সচিব শাহাবুদ্দিন স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

২০১৬ সালের ১৭ নভেম্বর থেকে ২০১৮ সালের ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চট্টগ্রামে দায়িত্ব পালন করেন মো. জহিরুল ইসলাম। এরপর বরখাস্তের আগ পর্যন্ত গাইবান্ধা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দায়িত্বে ছিলেন।

আদেশে চুরি যাওয়া গমের পরিমাণ ৩ হাজার ৩৫৩ মেট্টিক টন উল্লেখ করা হয়েছে। তবে সে সময়ে গম সরবরাহকারী দক্ষিণ কোরীয় প্রতিষ্ঠান সামজিন লিমিটেড ও আন্তর্জাতিক শিপিং এজেন্ট দাইয়ু করপোরেশনের দক্ষিণ কোরীয় বিমা কোম্পানি মেরিটস ফায়ার অ্যান্ড মেরিন ইনস্যুরেন্স হাইকোর্টে গমের এই পরিমাণ ৩৩ হাজার মেট্টিক টন উল্লেখ করেছিল।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বিভাগীয় খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মাহবুবুর রহমান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘সাবেক জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. জহিরুল ইসলামকে বরখাস্ত করার কথা আমরাও জানতে পেরেছি। তবে আমরা এখন পর্যন্ত কোনো নির্দেশনা পাইনি।’

২০১৪ সালের নভেম্বরে জাহাজ থেকে আনলোড করে গুদামে সরবরাহের আগেই ৩৩ হাজার মেট্রিক টন গম চুরি যায়। এই গম বন্দরের সরকারি ও বেসরকারি গুদাম থেকে ৫০৯২টি ট্রাকে করে সরিয়ে ফেলে সংঘবদ্ধ চক্র। পরে সেগুলো চট্টগ্রামেরই কয়েকজন ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করা হয়।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত চারটি মামলা হয়েছে। দুদক, এসবি ও সিআইডি পৃথকভাবে ঘটনা তদন্ত করেছে।