চট্টগ্রাম, , রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

চট্রগ্রাম জেলার রানার অপরাধ তদন্তে কারা অধিদফতরের কমিটি

প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৮ ১৮:১১:৫৮ || আপডেট: ২০১৮-১০-২৯ ১৪:৫৪:০৯

৪৪ লাখ ৪৩ হাজার টাকা ও ১২ বোতল ফেনসিডিলসহ রেলওয়ে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া চট্রগ্রাম কারাগারের রখাস্ত হওয়া জেলার সোহেল রানা বিশ্বাসের ঘটনা তদন্তে কারা অধিদফতর তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছে। ১৫ দিনের মধ্যে এই কমিটিকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (২৮ অক্টোবর) দুপুরে কারা মহাপরিদর্শক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ইফতেখার উদ্দিন এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

কারা মহাপরিদর্শক জানান, ঘটনার পর সোহেল রানা বিশ্বাসকে মৌখিকভাবে বরখাস্ত করার পর রবিবার অফিস খোলার পর তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে একটি লিখিত আদেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ঘটনা তদন্তে তিনি সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ঘটনা তদন্তে বরিশালের ডিআইজি প্রিজন্স ছগির মিয়াকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার কামাল হোসেন ও জয়পুরহাটের জেলার। কমিটিকে ১৫ দিনের মধ্যেই তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রামের জেলার সোহেল রানা বিশ্বাস চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহ যাওয়ার সময় ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশ তাকে আটক করে। তাকে মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে আটক করা হলেও পরবর্তী সময়ে তার পরিচয়পত্র দেখে রেলওয়ে পুলিশ নিশ্চিত হয়, তিনি চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার। তার ব্যাগ থেকে ৪৪ লাখ ৪৩ হাজার টাকা, আড়াই কোটি টাকার এফডিআর, এককোটি ৩০ লাখ টাকার বিভিন্ন ব্যাংকের চেক উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় ভৈরব রেলওয়ে থানা পুলিশের এসআই মোশাররফ ভূঁইয়া বাদী হয়ে শনিবার (২৭ অক্টোবর) দুটি মামলা দায়ের করেন। একটি মাদক আইনে, অন্যটি মানি লন্ডারিং আইনে।

মাদক আইনে দায়ের করা মামলাটিতে সোহেল রানার সাতদিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ। সোমবার রিমান্ডের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।