চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

‘রেকর্ড ভাঙ্গা’ শীত আসছে এ বছর

প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৭ ২২:৪১:৫৪ || আপডেট: ২০১৮-১০-২৭ ২২:৪১:৫৪

শীতের আগমনী আসতে শুরু করেছে উত্তরের হাওয়ায়। উত্তরের হাওয়া বলে দিচ্ছে চলে এসেছে শীতের মহারাণী। হেমন্তের শিশির বিন্দুতে সাদা কাশফুলের রঙও এখন বিবর্ণ হয়ে আসছে। ঢাকায় এখনও ওইভাবে শীত না পড়লেও গ্রামাঞ্চলে শীত পড়তে শুরু করেছে।

সন্ধ্যার পরপরই কুয়াশা আর হিমেল হাওয়ায় বন্দী হয়ে যাচ্ছে উত্তরাঞ্চলের বিস্তীর্ণ জনপদ। তাপমাত্রা কমছে সারাদেশেই।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, মেঘে ঢাকা পড়ে যাচ্ছে দেশের উত্তরাঞ্চল। আর তাই বাতাসের তাপমাত্রা কমেছে। ফলে শীতের আমেজ পাওয়া যাচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তাই অসময়ে শীত কিংবা গরম পড়ছে। তবে কনকনে শীত আসতে এখনো বেশ বাকি আছে।

সাধারণত বাংলাদেশে ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শীতের মৌসুম ধরা হয়। কিন্তু সাম্প্রতিককালে এই সমীকরণ পাল্টে গেছে। এই তিন মাস মিলে শীতকাল হলেও গত কয়েক বছর অক্টোবরের শুরু থেকেই আসতে শুরু করছে শীতের আমেজ। এ সময় সূর্য দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থান করে বলে বাংলাদেশ ও এর পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে সূর্যের রশ্মি তির্যকভাবে পড়ে। ফলে কমতে থাকে তাপমাত্রা, অনুভূত হয় শীত।

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, চলমান আবহাওয়ার গতি-প্রকৃতি দেখে মনে হচ্ছে, এবার শীতের তীব্রতা অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে। ভয়াবহ শীত পড়বে দেশে। গত বছরের ৮ জানুয়ারি ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে এসেছিল তাপমাত্রা। এবার তা আরও কমে আসতে পারে।

এদিকে, আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, নভেম্বরে সারাদেশে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এ সময় ১ থেকে ২টি নিম্নচাপের সৃষ্টি হবে। সেক্ষেত্র এ মাসেই তাপমাত্রা কমতে শুরু করবে ক্রমহ্রাসমান হারে। কিন্তু নিম্নচাপের দু’টির মধ্যে একটির ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।