চট্টগ্রাম, , বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮

তারেক ফিরে আসবেন: চট্টগ্রামে ফখরুল

প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৭ ১৯:১১:৪৮ || আপডেট: ২০১৮-১০-২৮ ১১:৪৯:৪৭

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান জনগণের সমর্থন নিয়েই দেশে ফিরে আসবেন বলে ড. কামাল হোসেনের উপস্থিতিতে চট্টগ্রামের সমাবেশে ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

গত ১৩ অক্টোবর গঠনের পর শনিবার চট্টগ্রামের কাজীর দেউরিতে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে দ্বিতীয় সমাবেশ করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এর আগে ২৪ অক্টোবর প্রথম সমাবেশটি হয় সিলেটে।

সিলেটের মতো চট্টগ্রামের সমাবেশেও ফ্রন্টের প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, গণস্বাস্থ্য ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জেএসডির আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মো. মনসুর আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

ফ্রন্ট এই সমাবেশটি করতে চেয়েছিল লালদীঘি ময়দানে। কিন্তু অনুমতি দেয়নি পুলিশ। পরে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে ‘ছোট পরিসরে’ জনসভা করতে বাধ্য হয় সরকারবিরোধী এই জোট। আর এ জন্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন বিএনপি মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার ভয় পেয়েছে। তারা এমন ভয় পেয়েছে যে, আমাদের সভাও করতে দেয় না। লালদীঘি ময়দান চেয়েছিলাম সভা করতে, অনুমতি দেয় নাই। কেন দেয় নাই? এই সভা বন্ধ করে দিয়ে কোন লাভ হবে না। জনগণকে আটকে রেখে কোন দিন কোন স্বৈরাচার টিকে থাকতে পারে নাই।’

ফ্রন্টের দুই নেতা জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এবং মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা দেয়ারও সমালোচনা করেন ফখরুল। তুলেন তারেক রহমান প্রসঙ্গও।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে নির্বাসিত করে রেখেছেন। লাভ হবে না, জনগণ জেগে উঠবে। তারেক সাহেব জনগণের সমর্থন নিয়েই এদেশে ফিরে আসবেন।’

সরকারকে ফখরুল বলেন, ‘আপনারা কেন বুঝতে পারেন না? জনগণের ভাষা কেন বুঝতে পারেন না। জনগণকে বাহিরে রেখে কোন দেশে কেউ টিকে থাকতে পারে নাই। বাংলাদেশেও পারবে না। বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে। এদেশের মানুষ বারবার তা প্রমাণ করেছে। দশ বছর থেকে দেশের মানুষ অধিকার বঞ্চিত। আবার সবাই এক হয়েছে দেশকে মুক্ত করার জন্য।’

ফখরুল বলেন, সরকার নিজেরা নাশকতা-সহিংসতা করে। তারপর বিরোধীদলের ওপর দোষ দেয়। আমরা অন্যায়ের কাছে মাথানত করব না। মামলা অনেক দিয়েছেন, অসংখ্য মামলা দিয়েছেন। এমন এমন মামলা দিয়েছেন, যা মানুষ চেনে না, জানে না। সেটাও দিচ্ছেন।

‘আমরা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে এই সরকারকে পরাজিত করব। সাত দফা দাবি আদায় করে তবেই আমরা ঘরে ফিরব। ভোটের অধিকার নিশ্চিত করেই আমরা ঘরে ফিরব।’

নাশকতার ‘ভৌতিক মামলা’ অনেক হয়েছে উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘ফখরুল বলেন, সরকার নিজেরা নাশকতা-সহিংসতা করে। তারপর বিরোধীদলের ওপর দোষ দেয়। …এমন এমন মামলা দিয়েছেন, যা মানুষ চেনে না, জানে না। সেটাও দিচ্ছেন।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আব্দুল মঈন খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান।