চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

ড. জাফরুল্লাহ’র প্রতিষ্ঠানকে সিলগালা ও ১৫ লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৩ ১৬:৫৮:৫৫ || আপডেট: ২০১৮-১০-২৩ ২১:৫৮:৪৩

র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত সাভারে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর মালিকানাধীন গণস্বাস্থ্য ফার্মাসিউটিক্যালস সিলগালা করেছেন। একইসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটিকে ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। এ সময় গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও অভিযান পরিচালনা করা হয়।

মঙ্গলবার (২৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সাভারের বাইশ মাইল এলাকায় অবস্থিত প্রতিষ্ঠান দু’টিতে এ অভিযান পরিচালনা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এই অভিযানে গণস্বাস্থ্য ফার্মাসিউটিক্যালসের বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ করা হয়। তা হলো অ্যান্টিবায়োটিক উৎপাদন শাখাটি আলাদা না হওয়া এবং সেখানকার তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ না করা। এই দুই কারণে সিলগালা করে প্রতিষ্ঠানটিকে ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এদিনের অভিযানে র‌্যাব হেড কোয়াটার্স, র‌্যাব-৪, সাভার উপজেলা প্রশাসন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর ও পুলিশ প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে অভিযান পরিচালিত হয়। এতে র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলমকে সহযোগিতা করেন সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবং নির্বাহী ম্যাজিস্টেট শেখ রাসেল হাসান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রণব কুমার ঘোষ।

অভিযানে কেমিক্যালসের বোতলে মেয়াদ লেখা নেই, রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহারের কোনো রেজিস্টার নেই, মেয়াদ উত্তীর্ণ রাসায়নিক দিয়ে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ তৈরির নমুনা পাওয়া যায়।

এদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি বুঝতে পেরে মান নিয়ন্ত্রণ বিভাগের কেমিস্ট শিবুতোষ মালাকার বেশকিছু রাসায়নিকের বোতলের গায়ে থাকা মেয়াদ কলম দিয়ে কেটে সময় বাড়িয়ে দেন।

এ প্রসঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলম বলেন, আমি এখানে এসে তাদের কার্যক্রম দেখে অত্যন্ত কষ্ট পেয়েছি। ছয় মাস আগে তাদের অ্যান্টিবায়োটিক শাখাটিকে আলাদা করার জন্য নোটিশ পাঠানো হয়েছিল। তবে তারা তা মানেনি।

তিনি আরও বলেন, দেশের ৯৫ শতাংশ বেসরকারি হাসপাতালে গণস্বাস্থ্য ফার্মাসিউটিক্যালসের প্যাথিডিন ব্যবহার করা হয়। অথচ এখানে ওষুধ উৎপাদনে মেয়াদহীন কাঁচামাল ব্যবহার করা হচ্ছে।