চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

‘ঘিরে রাখা দুই বাড়িতে জঙ্গি ও গোলাবারুদ রয়েছে’

প্রকাশ: ২০১৮-১০-১৬ ১২:০০:২৯ || আপডেট: ২০১৮-১০-১৬ ১২:০০:২৯

নরসিংদীতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা দু’টি বাড়িতে বেশ কয়েকজন জঙ্গি ও গোলাবারুদ রয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম। মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ১০টায় নরসিংদীর মাধবদী পৌরসভার গাঙপাড় এলাকার আফজাল হাজির নিলুফা ভিলার সামনে সাংবাদিকদের তিনি এ আশঙ্কার কথা জানান।

মনিরুল ইসলাম বলেন, এরই মধ্যে কাউন্টার টেরোরিজমের পাশাপাশি পুলিশের বিশেষ বাহিনী সোয়াট ও বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল অভিযানে যোগ দিয়েছে। এলাকার লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে জঙ্গি আস্তানা দু’টিতে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

তিনি বলেন, প্রথমে জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হবে। আত্মসমর্পণ করলে অভিযানের ধরন হবে এক রকম আর আত্মসমর্পণ না করলে অভিযানের ধরণ হবে আরেক রকম।

সোমবার (১৫ অক্টোবর) রাত ১০টার থেকে মঙ্গলবার সকাল ১০টা পযর্ন্ত বাড়ি দুটি ঘিরে রেখেছে বাহিনীর সদস্যরা। মাধবদী পৌরসভার গাংপাড় এলাকার আফজাল হাজির ‘নিলুফা ভিলা’ নামে একটি ভবনে গত ৬ মাস আগে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার এলাকার বাসিন্দা হাফিজ ভূইয়া নামে এক ব্যক্তি বাসাটি ভাড়া নেন।

ভবনটিতে জঙ্গি কর্মকাণ্ড চলছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাত থেকে বাড়িটি ঘিরে রাখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বাসার ভেতর থেকে লাইট বন্ধ করে দেয় তারা।

এদিকে সদর উপজেলার শেখেরচরের দিঘিরপাড় চেয়ারম্যান বাড়ি সড়কে বিল্লাল মিয়ার ৫তলা বিশিষ্ট আরেকটি ভবনে জঙ্গি আস্তানার খবর পায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা।

ঘিরে রাখা বাড়ি দুটিতে নারী-পুরুষসহ পাঁচজন জঙ্গি রয়েছে বলে ধারণা পুলিশের। এদিকে রাতেই ওই দুটি বাড়ির অন্যান্য ভাড়াটিয়াদের সড়িয়ে নেয়া হয়েছে।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শিবপুর সার্কেল) থান্ডার খায়রুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, সাত তলা বাড়িটির এক তলা থেকে তিন তলা পর্যন্ত মিততাহুল জান্নাহ হমিলা মাদরাসা। আমরা গোপন সূত্রে তথ্য পেয়েছি দুটি বাড়িতে ৫ জন জঙ্গি অবস্থান করছে।