চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮

ফটিকছড়িতে পথসভার মঞ্চ ভাঙচুর : জোটের এমপির ইন্ধন দেখছেন পূর্তমন্ত্রী

প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৫ ১৯:০৩:৫২ || আপডেট: ২০১৮-১০-০৬ ১৪:২৫:২১

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে আওয়ামী লীগের পথসভার মঞ্চ ভাঙচুর ও হামলায় ১৪ দলীয় জোটের স্থানীয় এমপি তরকিত ফেডারেশনের সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীর ইন্ধন আছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য, গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।

তিনি বলেন, ‘দলের মধ্যে বিভ্রান্তি, উন্নয়নকাজের চিত্র জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর কাজে একটি গোষ্ঠী বাধার সৃষ্টি করছে। রাজনীতির অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, এ ঘটনায় অবশ্যই ইন্ধন আছে, যা দেখেছি প্রধানমন্ত্রীকে জানাবো।’

শুক্রবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

একাদশ সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রীর পথসভার মঞ্চ গতকাল ভাঙচুর করে স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। ফটিকছড়ির আজাদী বাজার ও নাজিরহাট ঝংকার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আজ ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘এখানে ১৪ দলের মনোনয়নে নির্বাচিত একজন এমপি আছেন। তিনি আবার যদি মনোনয়ন পান, আবার কাজ করবেন। তবে দলের নেতাকর্মীরা চান, এখানে দলীয় প্রার্থী যেন মনোনয়ন পান।’

সঠিক তথ্য মিডিয়ায় আসেনি দাবি করে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০ বছরের সোনালি সময়ের উন্নয়নবার্তা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে মিরসরাই থেকে পথসভার কর্মসূচি শুরু করেছি। ফটিকছড়িতে চারটি পথসভা জনসভায় পরিণত হয়। আজাদী বাজারের পথসভায় আমি বক্তৃতা দেইনি। মিডিয়ায় সামান্য উত্তেজনাকে ফলাও করে প্রচার করা হয়েছে। অথচ চারটি সফল জনসভার খবর নেই। আমি অনুরোধ করবো, সফলতার কথাও যেন প্রচার করা হয়।’

স্থানীয় রাজনীতি নিয়ে তিক্ততার কথা জানাতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘নিজের হাতে অনেক নেতা তুলেছি। তারাই এখন আমার বিরোধিতা করছে। ছেলেরা যদি বেয়াদবি করে, আমাকে অবশ্যই বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে বলতে হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম, ফটিকছড়ি আসনের আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, সাবেক সংসদ সদস্য রফিকুল আনোয়ারের মেয়ে খদিজাতুল আনোয়ার, জসীম উদ্দিন শাহ, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুজিবুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী, সাদাত আনোয়ার সাদী প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ফটিকছড়িতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দুই ধারায় বিভক্ত। গত দুই বছর ধরে একটি উপজেলা আওয়ামী লীগ অপরটি আওয়ামী পরিবার নাম দিয়ে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। আওয়ামী পরিবার হলো মূলত স্থানীয় এমপি তরকিত ফেডারেশনের সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীর অনুকূলে। গতকাল পথসভার আয়োজক ছিল উপজেলা আওয়ামী লীগ, যার নেতৃত্বে রয়েছেন ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী।

বর্তমান এমপি সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী ১৯৯১ সালে ফটিকছড়ি থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে জয়ী হন। পরে ২০০১ সালে বিএনপিতে যোগ দেন তিনি। এরপর নিজেই তরিকত ফেডারেশন গঠন করে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোট বাধেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৪ সালে বিএনপিবিহীন নির্বাচনে এ আসন থেকে মনোনয়ন পেয়ে তিনি নির্বাচিত হন।