চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

চবি ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সাহায্য দিতে ‘এডমিশন এসিস্ট্যান্ট’ অ্যাপস

প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৩ ১৭:৪৪:১১ || আপডেট: ২০১৮-১০-০৩ ১৯:০৯:২৭

চবি প্রতিনিধি

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের সাহায্য দিতে তৈরি করা হয়েছে অ্যাডমিশন অ্যাসিস্ট্যান্ট নামের একটি বিশেষ অ্যাপ।

অ্যাপসটি নির্মাণ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের কয়েকজন শিক্ষার্থী। এতে চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন নেতৃত্ব দেন। তিনি সাইন্স শপ বিডি নামক অনলাইন শপের প্রতিষ্ঠাতা।

এতে রয়েছে ক্যাটাগরি ভিত্তিক বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির যাবতীয় তথ্য। এ্যাপসের মাধ্যমে আবেদন করে বিকাশ/রকেটে টাকা জমা দিতে হবে। ভর্তি পরীক্ষা দিতে গিয়ে যেন সিট খুঁজে পেতে ঝামেলা না হয় তাই দেয়া হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের ম্যাপও। রয়েছে বাস,ট্রেন,হোটেলের সিট বুকিং করার সুবিধা।

অ্যাডমিশন অ্যাসিস্ট্যান্ট টিমের প্রধান আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার সময় প্রত্যেক শিক্ষার্থী যে শুধু পড়ালেখা নিয়েই ব্যস্ত ও চিন্তার মধ্যে থাকে তা নয়। ভর্তি ফরম পূরণের শেষ সময়, টাকা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ, ভর্তি পরীক্ষা কবে- এসব কথা সব সময় মাথায় ঘুরপাক খায়।”

তিনি আরো বলেন “একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে হলে, কোন সিলেবাসে কী পড়তে হবে, ভর্তির যোগ্যতা কী, কীভাবে দূরের ক্যাম্পাসে যেতে হবে- তা নিয়েও চলে নানা দ্বিধা আর বিভ্রান্তি।”

তিন মাসের নিরলস চেষ্টার পর তারা অ্যাপসটি প্লে-স্টোরে উন্মুক্ত করেছে। ইতিমধ্যে অ্যাপসটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছুদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে বলেও জানা গেছে।

প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকেও অনেক ব্যবহারকারী তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন। যা তাদেরকে স্বপ্ন দেখাচ্ছে এই এ্যাপস একদিন লাখো ভর্তি প্রত্যাশীর ভরসার প্রতীক হয়ে উঠবে। এতে তথ্য কিংবা কোন জটিলতার কারণে উচ্চ শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবে না দেশের একজন শিক্ষার্থীও।

এ্যাপসটির সঙ্গে জড়িত অন্যান্যরা হলেন একই বর্ষের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ জাওয়াদ খান, মাহবুবুর রহমান,শোভন মাহমুদ ও প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সাফায়াত সিদ্দিকী। এ ছাড়া প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোহাম্মদ উল্লাহ, ফাহাদ ও মারুফ।

ইতিমধ্যে বাংলাদেশ সরকারের একসেস টু ইনফরমেশন’র অধীনে জাতীয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতার জন্য এটি মনোনীত হয়েছে।