চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

রাজপথে শয়তান থাকলে তার সঙ্গেও ঐক্য: বিএনপির সমাবেশে ঘোষণা

প্রকাশ: ২০১৮-০৯-৩০ ১৯:০৬:২২ || আপডেট: ২০১৮-০৯-৩০ ১৯:০৬:২২

বর্তমান সরকারকে হঠাতে প্রয়োজনে শয়তানের সঙ্গে ঐক্য করার ঘোষণা এসেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির জনসভা থেকে।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘রাজপথে যেই থাকবে তার সাথেই ঐক্য হবে। রাজপথে যদি শয়তানও থাকে, তার সঙ্গেও ঐক্য হবে।’

রবিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের এই সমাবেশের দিকে দৃষ্টি ছিল রাজনীতি নিয়ে আগ্রহীদের। জাতীয় ঐক্য নিয়ে বিএনপির সঙ্গে কামাল হোসেনের গণফোরাম এবং এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে আলোচনার মধ্যে এই সমাবেশ থেকে কোনো সুস্পষ্ট ঘোষণা আসে কি না, এ নিয়ে আগ্রহ ছিল।

তবে প্রধান বক্তা খন্দকার মোশাররফ হোসেন, সভাপতি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঐক্যের বিষয়ে সরাসরি কিছু বলেননি।

তবে গয়েশ্বর বলেন, ‘বিএনপি ঐক্যের জন্য প্রস্তুত। খালেদা জিয়ার ডাকে যে ঐক্য যাত্রা শুরু হয়েছিল, সেই ঐক্য মানুষের মনে আশার তৈরি করেছিল। সেই ঐক্যের জন্য বিএনপি প্রস্তুত। এই ঐক্যে অনৈক্যের সুর বাজলে জনগণ থুতু দেবে।’

এই ঐক্যের আলোচনায় বিভিন্ন ‘ছোট দলের’ ‘বড় দাবি’রও সমালোচনা করেন বিএনপি নেতা। বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া জাতীয় ঐক্যের কথা বলেছেন। আমরা ঐক্য চাই। কিন্তু এই আন্তরিকতাকে কেউ দুর্বলতা ভাববেন না। যাদের লোক নাই, জন নেই তারা বিএনপিকে চাপ সৃষ্টি করবেন তাহলে জনগণ থুথু ফেলবে।’

‘বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্দলীয় সরকারের অধীনে যারা আন্দোলনে রাজপথে নামবে তাদের সঙ্গে আমাদের ঐক্য হবে। সেখানে যদি শয়তানও থাকে তাদের সাথেই ঐক্য হবে।’

দলের স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ‘জাতীয় ঐক্য হবে কি হবে না জানি না। কারণ সরকার ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু বিএনপির সমস্যা নাই। কারণ বিএনপিকে আন্দোলন করতে হবে।’

আলোচিত ‘জাতীয় ঐক্য’ চেষ্টা নিয়েও কথা বলেন মওদুদ নেতা। বলেন, ‘ঐক্যের বাঁধ সরকার ভাঙতে পারবে না। সময় হবে যখন ঐক্যবদ্ধ মানুষের জোয়ার সরকার মোকাবেলা করতে পারবে না।’

স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মঈন খান বলেন, ‘সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে আওয়ামী লীগকে এক ঘরে করে দিতে হবে।’